ঢাকা, শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ আপডেট : ১ মিনিট আগে

পাওনা টাকা না দেয়ায় জিহ্বা কর্তন, গ্রেপ্তার ৪

  ধামরাই প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৪৮  
আপডেট :
 ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৩

পাওনা টাকা না দেয়ায় জিহ্বা কর্তন, গ্রেপ্তার ৪
ছবি: সংগৃহীত
ধামরাই প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ে পাওনা টাকা চাওয়াতে বাড়িতে ডেকে নিয়ে জিহ্বা কেটে নেয়ার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হত্যা চেষ্টার ঘটনায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ২/৩ জনের নামে একটি মামলা ধায়ের করেছেন ভুক্তভোগীর বাবা রহমত আলী (৭০)।

ভুক্তভোগী মো. সাইফুর রহমান (৩২) উপজেলার রোয়াইল ইউনিয়নের ফরিঙ্গা গ্রামের মো. রহমত আলীর ছেলে। তিনি বর্তমানে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার রোয়াইল ইউনিয়নের ফড়িঙ্গা গ্রামের শফিকুল ইসলামের বাড়িতে। এঘটনায় রাতে অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন, ফরিঙ্গা গ্রামের ফজল হকের ছেলে শফিকুল ইসলাম (৪০), শফিকুল ইসলামের মেয়ে শারমিন (২২), শফিকুল ইসলামের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৩৮) ও শফিকুল ইসলামের ছেলে ফারুক হোসেন (২০)।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২২ অক্টোবর বিকেলে ফরিঙ্গা বাজারে পাওনা টাকা নিয়ে ভুক্তভোগী সাইফুলের সঙ্গে শফিকুলের তর্কবির্তক হয়। এর জের ধরে ওই দিন রাতে টাকা দেয়ার জন্য শফিকুলের বাড়িতে ফোন করে ডেকে নিয়ে শফিকুলসহ তার পরিবার সাইফুরকে টাকা না দিয়ে মেঝেতে ফেলে তার পুরো জিহ্বা কেটে নেয়। ভুক্তভোগীর ডাক চিৎকারকে আশ পাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করে।

তবে স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, সাইফুর রহমানের সাথে গ্রেপ্তারকৃত ২ নং আসামি শারমিন আক্তারের দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন সাইফুর। বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হয় একাধিক বার। কিন্তু বিয়ে না করে দিনের পর দিন সময়ক্ষেপণ করতে থাকলে প্রেমিকা শারমিন ক্ষিপ্ত হয়ে পরিবারের সহযোগিতায় সাইফুলের ওপর অমানবিক নির্যাতন চালায়, একপর্যায়ে জিহ্বা কেটে ফেলে প্রেমিক সাইফুরের।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক তন্ময় সাহা জানান, এ ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে রোববার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আরও ১ আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। তবে ঘটনাটি প্রেম সংক্রান্ত কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, তদন্তে এ রকম কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

বাংলাদেশ জার্নাল/ওএফ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত