ঢাকা, শনিবার, ২২ জানুয়ারি ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮ আপডেট : ৫ মিনিট আগে

মুরাদের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় অভিযোগ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২০:৪৭  
আপডেট :
 ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৩৯

মুরাদের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় অভিযোগ
ছবি- সংগৃহীত
নিজস্ব প্রতিবেদক

কুরুচিকর মন্তব্যের জেরে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে সদ্য পদত্যাগ করা ডা. মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার রাতে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুদ হাওলাদার বাংলাদেশ জার্নালকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বেশ কয়েকদিন ধরে বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে আলোচনায় ছিলেন ডা. মুরাদ। এর মধ্যে ঢাবি নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে তার কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যও ভাইরাল হয়।

এবিষয়ে ওসি মওদুদ হাওলাদার বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের কটাক্ষ ও বিশ্ববিদ্যালয়কে হেয় করে বক্তব্য দিয়েছিলেন মুরাদ। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জুলিয়াস সিজার তালুকদার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে জিডি হিসেবে নেয়া হয়েছে। এরপর এটি সাইবার ক্রাইম বিভাগে পাঠানো হবে।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান নাহিদ রেইনস পিকচার্স নামে একটি ফেসবুক পেইজে লাইভ অনুষ্ঠানে এসে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেন। এই বক্তব্যকে ‘বিকৃত যৌনাচার ও বিদ্বেষমূলক’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন সিজার তালুকদার।

অভিযোগে আরও বলা হয়, মুরাদ হাসান দেশের সর্বপ্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে উদ্দেশ্যমূলকভাবে তাচ্ছিল্য করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে রোকেয়া হল ও শামসুন্নাহার হলের নারী শিক্ষার্থীদের চরিত্র হননের অপচেষ্টা করেছেন।

মুরাদ হাসানের বক্তব্যে শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নয়, অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিও তীব্র অশ্রদ্ধা প্রদর্শিত হয়েছে বলে উল্লেখ করেন সিজার।

তিনি লিখেছেন, বিদ্যাপীঠসমূহের প্রতি তীব্র অশ্রদ্ধা প্রদর্শনের মাধ্যমে মধ্যযুগীয় কায়দায় ঘৃণার রাজনীতি করার অপপ্রয়াস দেখিয়েছেন। অন্যদিকে নারী শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচারমূলক বক্তব্য দিয়ে তাদের চরিত্র হননের অপচেষ্টা করেছেন, তিনি নারীর রাজনীতি ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের বিরোধিতা প্রকাশ করেন। মুরাদ হাসানের এই বক্তব্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সামাজিকভাবে মানক্ষুণ্ন করেছে।

এর আগে গত ৫ ডিসেম্বর রাতে ফেসবুক লাইভে তিনি বলেন, তারা আমাদের শিষ্টাচারের সংজ্ঞা শেখাতে চায়। তসলিমা নাসরিনের মতো অনেকে বাংলাদেশ আছে। এরা আবার জয় বাংলার কথা বলে,ছাত্রলীগ করে! অধিকন্তু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে। কোন কোন হলের নেত্রীও ছিল। কেউ বলেন শামসুন নাহার হল, কেউ বলেন রোকেয়া হলের।

এর আগে অশালীন, শিষ্টাচারবহির্ভূত ও নারীর প্রতি চরম অবমাননাকর বক্তব্য দেয়ায় মুরাদ হাসানকে আজকের মধ্যে পদত্যাগ করতে বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরপর মঙ্গলবার দুপুরে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। বর্তমানে পদত্যাগপত্রটি সচিবের দপ্তর থেকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে জমা দেয়া হয়েছে।

একই দিনে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদকের পদ থেকে ডা. মুরাদ হাসানকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এফজেড/এমজে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত