ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ আপডেট : ৮ মিনিট আগে

ঢাবিতে শাবিপ্রবির ভিসির অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ

  ঢাবি প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৫:৪৮

ঢাবিতে শাবিপ্রবির ভিসির অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ
ছবি: প্রতিনিধি
ঢাবি প্রতিনিধি

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে একাত্মতা পোষণ করে তিন দফা দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাম ছাত্রসংগঠনগুলো।

সোমবার দুপুর সোয়া একটায় টিএসসির পায়রা চত্বর থেকে এ মিছিল শুরু হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে তারা ডাকসু ক্যাফেটেরিয়ার সামনে সমাবেশ করে। ২টা ৩০মিনিটে সমাবেশ শেষ হয়।

আন্দোলনকারীরা শাবিপ্রবি বন্ধ ঘোষণার সিদ্ধান্ত বাতিলকরণ, ভিসির অপসারণ ও হামলাকারি পুলিশ-ছাত্রলীগের বিচারের দাবি জানান।

সমাবেশে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মোস্তফা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় রক্ত ঝরানোর জায়গা নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন পুলিশ গুলি চালাবে? আন্দোলনে কেন হামলা করা হবে? কেন কোনো সমাধান না করে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করা হবে? শিক্ষক প্রশাসন আরামে থাকবে আর শিক্ষার্থীরা কষ্টে থাকবে তা হতে পারবে না। ক্যাম্পাসকে পুলিশ, প্রশাসন, সরকার সন্ত্রাসী কারখানায় পরিণত করেছে। শিক্ষার্থীরা গুলি খেলে শিক্ষকের চুপ থাকা মানে দালালি করা। এমন আইন করতে হবে যেখানে কেউ দালালি করে ঢুকতে পারবে না। আমরা শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের দাবির সাথে একাত্মতা পোষণ করে দাবি জানাচ্ছি। এক বিন্দুও ছাড় হবে না। তারা সেখানে লড়াই করবে আর আমরা এখানে লড়াই করব।’

সমাজতন্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট (মার্কসবাদী) এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জয়দ্বীপ ভট্টাচার্য বলেন, ‘প্রভোস্টের কাছে সিট সমস্যা সমাধানের দাবি জানালে শিক্ষার্থীরা কটু কথা শোনে। শিক্ষার্থীদের অবস্থা দেখতে আসতে বলা হলে তিনি বলেন “এখনই আসতে হবে কেন।”

তিনি বলেন, তোমরা দরকারে বের হয়ে যাও, তবে আর ঢুকতে পারবে না।” ছাত্রলীগের আক্রমণে আমরা ব্যথা পাই না, কারণ আমরা জানি সেটা হবেই। তারা কোনো আদর্শিক ছাত্ররাজনীতি করে না। তবে যখন শিক্ষকরা আমাদের পিতা-অভিভাবক হয়ে আমাদের রক্ষা করার বদলে আক্রমণ করে তখন তা মেনে নেয়া যায় না।”

বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারশনের মিতু সরকার বলেন, ‘আপনারা ২/৩ দিন ধরে গণমাধ্যমে সব ছবি দেখছেন। কীভাবে পুলিশ হামলা করেছে, কীভাবে শিক্ষার্থীদের মাথা ফাটানো হয়েছে, পা ভাঙা হয়েছে। ছাত্রীদের শরীরে আঘাত ছবি ও রাবার বুলেটে জর্জরিত শিক্ষার্থীদের ছবি দেখেছেন। পুলিশকে এই হামলার অনুমতি কে দিয়েছে?

শাবিপ্রবির আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আপনারা পালিয়ে না গিয়ে পাল্টা প্রতিবাদ করেছেন। এই সাহসিকতার জন্য অভিনন্দন জানাই। আপনারা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন। আপনাদের সাথে বিভিন্ন জেলায়, বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনে হচ্ছে। এখানে ভিসি-প্রক্টরকে অপসারণ করতে হবে। তিন দফা দাবি আদায় করতে হবে। দাবি না মানা হলে সারা বাংলায় আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ জার্নাল/ওএফ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত