ঢাকা, সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ৯ মিনিট আগে

ঠিকাদা‌রি প্রতিষ্ঠানকে স্কুলমাঠ ভাড়া, তথ্য আনতে গিয়ে দুই সাংবাদিক লাঞ্ছিত

  গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৫ মে ২০২২, ১৭:২৭  
আপডেট :
 ২৫ মে ২০২২, ১৭:৩৬

ঠিকাদা‌রি প্রতিষ্ঠানকে স্কুলমাঠ ভাড়া, তথ্য আনতে গিয়ে দুই সাংবাদিক লাঞ্ছিত
ছবি: প্রতিনিধি
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার বান্ধাবাড়ি জেবিপি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ ঠিকাদের কাছে ভাড়া দিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। বিনিময়ে ঠিকাদা‌রি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে অর্থনৈতিক সুবিধা নেয়া হয়েছে। মাঠে দুইটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা করতে না পারায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে এ বিষয়ে আজ বুধবার খবর সংগ্রহ করতে গেলে দুই সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। স্কুল মাঠ ভাড়া দেবার ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

জানা গেছে, কোটালীপাড়া উপজেলার নাগরা-বান্ধাবাড়ি-রাশমীল সড়ক নির্মাণকাজের সামগ্রী রাখার জন্য বান্ধাবাড়ি জেবিপি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠটি ঠিকাদারের কাছে ভাড়া দিয়েছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে জেবিপি উচ্চ বিদ্যালয় ও বান্ধাবাড়ি হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা রয়েছে। এই দুটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই মাঠটিতে খেলাধুলা করে। মাঠটিতে ইট, খোয়াসহ নানা ধরণের নির্মাণসামগ্রী রাখার কারণে শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা করতে পারছে না। আর বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে মেশিন দিয়ে ইট ভাঙার কারণে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণেও সমস্যা হচ্ছে। যার ফলে বিপাকে পড়েছে স্কুলের শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে এলাকায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

বুধবার সকালে সরেজমিনে এ ঘটনার ভিডিওচিত্র ও বক্তব্য নিতে গেলে স্কুলের শিক্ষক ও কর্মচারীরা চড়াও হয়ে ছবি নিতে বাধা দিয়ে সাংবাদিক বাদল সাহা ও মুন্সী মোহাম্মদ হুসাইনকে লাঞ্ছিত করেন।

স্কুলমাঠ ভাড়া দেযার ঘটনায় কোটালীপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিপুন রায়কে প্রধান করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দেয়ার জন্য নিদের্শ দিয়েছেন কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য মো. কামাল হোসেন বলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন কোটালীপাড়া উপজেলার নাগরা-বান্ধাবাড়ী-রাশমীল সড়ক নির্মাণ কাজ পায় ‘গাজী এন্টারপ্রাইজ’ নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। কাজ করার জন্য নির্মাণসামগ্রী রাখা হয়েছে। এর বিনিময়ে ওই ঠিকাদার সাত লাক্ষ টাকা বিদ্যালয়ের সভাপতি ও প্রধান শিক্ষককে দিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন কামাল হোসেন।

স্কুলের মাঠ ভাড়া দেয়ার কথা স্বীকার করে বান্ধাবাড়ী জেবিপি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুর রশিদ বলেন, বিদ্যালয়ের যে মাঠটি ভাড়া দেয়া হয়েছে, সেটি আমাদের বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ব্যবহার করে না। ওই মাঠটি আমাদের হলেও বান্ধাবাড়ী হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ব্যবহার করে। মাঠটিতে নির্মাণসামগ্রী রাখার জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গাজী এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. জসিমউদ্দীন কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ও একটি সিসিটিভি মনিটরের বিনিময়ে অনুমতি দেয়া হয়েছে। এখানে আমার নামে যে সাত লাখ টাকা নেয়ার অভিযোগ করা হয়েছে তা ভিত্তিহীন।

বান্ধাবাড়ী জেবিপি উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হান্নান মোল্লা বলেন, স্কুল কমিটি রেজুলেশন করে মাঠটি তিন মাসের জন্য ভাড়া দেয়া হয়েছে। এর জন্য ঠিকাদার ৫০ হাজার টাকা ও একটি সিসিটিভি মনিটর স্কুলে কিনে দেবে। এখানে আমার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

গাজী এন্টারপ্রাইজের মালিক ঠিকাদার মো. জসিমউদ্দীন বলেন, আমি তিন মাসের জন্য মাঠটি ভাড়া নিয়েছি। বিনিময়ে বিদ্যালয়ে ৫০ হাজার টাকা ও একটি সিসিটিভি মনিটর দিতে হবে।

এসব ব্যাপারে কোটালীপাড়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌস ওহায়িদ বলেন, বিষয়টি আমি শোনার পর মাঠ থেকে নির্মাণসমাগ্রী সরিয়ে নেবার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে। বিদ্যালয়ের মাঠ ভাড়া দেয়ার কোনো বিধান নেই। এ বিষয়ে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দেয়ার জন্য নিদের্শ দেযা হয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত