ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে

পাঁচদিনের রিমান্ডে স্কুলছাত্র শিহাব হত্যা মামলার প্রধান আসামি

  টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৮ জুন ২০২২, ২২:১৫  
আপডেট :
 ২৮ জুন ২০২২, ২২:১৯

পাঁচদিনের রিমান্ডে স্কুলছাত্র শিহাব হত্যা মামলার প্রধান আসামি
শিশুশিক্ষার্থী শিহাব মিয়া। ফাইল ছবি
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলের ছাত্রাবাসে শিক্ষার্থী শিহাব মিয়াকে হত্যা মামলায় ওই স্কুলের শিক্ষক আবু বক্করের (৩৫) পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার বিকেলে শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. শামসুল আলম এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। টাঙ্গাইলের আদালত পরিদর্শক তানভীর আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আবু বক্কর সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলের আবাসিক। এর আগে গত রোববার রাতে পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।

আদালত পরিদর্শক জানান, বিকেলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা টাঙ্গাইল সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাবিবুর রহমান ৭ দিনের রিমান্ড চান। শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. শামসুল আলম ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে সোমবার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় নিহতের মা আসমা আক্তার বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখসহ আরও অজ্ঞাতনামা ৮-১০ জনের নামে টাঙ্গাইল সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার নামীয় আসামিরা হলেন- সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলের আবাসিক শিক্ষক আবু বক্কর, বিপ্লব, আশরাফ, মাসুদ, মতিন ও বিজন।

টাঙ্গাইল সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশাররফ হোসেন জানান, মামলা দায়েরের পর আবু বক্করকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। পরে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন: আত্মহত্যা নয়, সৃষ্টি স্কুলের আবাসিক ছাত্র শিহাবকে শ্বাসরোধে হত্যা

উল্লেখ্য, গত ২০ জুন শহরের বিশ্বাস বেতকা সুপারিবাগান এলাকার সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলের ছাত্রাবাস থেকে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র শিহাবের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে ছাত্রাবাসের আবাসিক শিক্ষকরা তার মরদেহ টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। শিহাব সখীপুর উপজেলার বেরবাড়ী গ্রামের প্রবাসী ইলিয়াস হোসেনের ছেলে। শিহাবকে চার মাস আগে সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলে ভর্তি করা হয়। সে সুপারি বাগান এলাকায় ওই স্কুলের একটি ছাত্রাবাসে সপ্তম তলায় থাকতো।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে মর্গে শিহাবের মরদেহ ময়নাতদন্ত হয়। শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগে সহকারী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম মিয়ার নেতৃত্বে তিন সদস্যের চিকিৎসক দল শিহাবের ময়নাতদন্ত করেন। গত রোববার টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন আবুল ফজল মো. সাহাবুদ্দিন খান ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পাঠান।

শিহাবকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। শিহাবের মরদেহ উদ্ধারের পর মৃত্যুর কারণ ও হত্যায় জড়িতদের শাস্তির দাবিতে টাঙ্গাইল এবং ঢাকায় মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার দুপুরেও শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে শিহাব হত্যার বিচারের দাবিতে জেলা ছাত্রলীগ সমাবেশ করেছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত