কালীগঞ্জে স্কুলের বিদ্যুতে চলে পুকুরের মাছ চাষ

প্রকাশ : ০৫ জুলাই ২০২২, ২৩:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

  ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ছবি: প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে স্কুলের বিদ্যুতে চলে লীজ দেয়া পুকুরের পানির মোটর। এ ভাবেই বিদ্যুতের সাইড লাইন দিয়ে চলছে প্রায় এক যুগ। কোন হৈচৈ নেই। নেই প্রশাসনিক পদক্ষেপ। প্রতি মাসে স্কুল ফান্ড থেকে ১০ হাজার টাকার বিদ্যুৎ বিল প্রদান করা হয়। অথচ স্কুলের পুকুরটি লীজ দেয়া আছে অন্যের নামে। তিনি সেখানে বানিজ্যিক ভাবে মাছ চাষ করেন।

উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামে অনেকদিন ধরেই এভাবে চলে আসছে অবৈধভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে মাছ চাষ। 

এক লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, রঘুনাথপুর রোস্তম আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পুকুরটি লীজ দেয়া হয়েছে বারোবাজার এলাকার মাছ চাষি বাচ্চুর কাছে। স্কুলের কাছ থেকে লীজ নিয়ে তিনি সেখানে বানিজ্যিক ভাবে মাছ চাষ করেন। পুকুরে একটি পানির মোটর বসানো আছে। স্কুল থেকে অবৈধ ভাবে সাইড লাইন নিয়ে মৎস্য চাষি বাচ্চু গভীর নলকূপ বসিয়ে সেচ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। আর তার এই কাজে সহায়তা করছেন রঘুনাথপুর রোস্তম আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতিয়ার রহমান ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আমির হোসেন।

রঘুনাথপুর ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য ইদ্রিস আলী ইদু পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কালীগঞ্জ জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজারের কাছে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, প্রধান শিক্ষক আতিয়ার রহমান এবং স্কুল সভাপতি আমির হোসেন প্রায় ১৫ বছর ধরে বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে অবৈধভাবে সাইড লাইন দিয়ে পুকুরে বণিজ্যিকভাবে মাছ চাষে সহায়তা করে যাচ্ছে, যা সমিতির আইনে দণ্ডনীয়অপরাধ। বিষয়টি নিয়ে তিনি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে কালীগঞ্জ জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার রথীন্দ্র নাথ বসাক জানান, অভিযোগের বিষয়টি এজিএমের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তিনিই তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসএস