সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণ: ডিএনএ পরীক্ষায় ৮ লাশের পরিচয় শনাক্ত

প্রকাশ : ০৭ জুলাই ২০২২, ২০:০৫ | অনলাইন সংস্করণ

  চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

ফাইল ফটো

চট্টগ্রামের বিএম ডিপোতে বিস্ফোরণে মারা যাওয়াদের মধ্যে যে ২২ জনের পরিচয় জানতে ডিএনএ টেস্ট করা হয়েছিল তাদের মধ্যে ৮ জনের পরিচয় মিলেছে। বাকি লাশগুলোর ডিএনএ টেস্ট এখনো চলমান রয়েছে। এর ফলে নতুন শনাক্ত হওয়া ৮ জনসহ এখন পর্যন্ত মারা যাওয়া ৩৬ জনের লাশের পরিচয় শনাক্ত হলো।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে থাকা ২২ লাশের মধ্যে ৮ জনের পরিচয় জানা গেছে।

নিহতরা হলেন- ডিপোর গাড়িচালক আক্তার হোসেন, মোহাম্মদ শাহজাহান, বলভেট অপারেটর মনির হোসেন, ইলেকট্রিশিয়ান মো. রাসেল, কাভার্ডভ্যানের হেলপার মোহাম্মদ সাকিব, ডিপোর আইসিটি সুপারভাইজার আবদুর সোবহান প্রকাশ আবদুর রহমান, লরি চালক আবুল হাশেম ও বাবুল মিয়া।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক। তিনি বলেন, বিএম ডিপোর বিস্ফোরণের পর ২২ মরদেহের শরীর বিকৃত থাকায় এতদিন তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

উল্লেখ্য, গত ৪ জুন রাত সাড়ে ৯টায় সীতাকুণ্ডের সোনাইছড়ি ইউনিয়নে অবস্থিত বিএম কন্টেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। খবর পেয়ে কুমিরা ও সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা আগুন নেভাতে যান। এ সময় রাসায়নিক ভর্তি একটি কন্টেইনার বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়। এতে এখন পর্যন্ত ১০ জন ফায়ার ফাইটারসহ ৫১ জন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন ২৩০ জনেরও অধিক মানুষ।

এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ এনে বিএম ডিপোর আট কর্মকর্তাকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। পরে ঘটনার সঠিক কারণ বের করতে বেশ কয়েকটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়। তাদের মতে, ডিপোতে থাকা হাইড্রোজেন পার-অক্সাইড ভর্তি কন্টেইনার থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় এবং পরবর্তীতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে