ঢাকা, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ আপডেট : ১ মিনিট আগে
শিরোনাম

সীতাকুণ্ডে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় ১০ মামলার আসামি গ্রেপ্তার

  চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৮:৪৮

সীতাকুণ্ডে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় ১০ মামলার আসামি গ্রেপ্তার
গণধর্ষণের মামলার আসামি দেলোয়ার হোসেন। ছবি: প্রতিনিধি
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে গৃহবধূকে গণধর্ষণের মামলার অন্যতম আসামি দেলোয়ার হোসেনকে (৩৮) গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ, ডাকাতি, অস্ত্র, বিস্ফোরক, বিশেষ ক্ষমতা আইন, মারামারি, চুরি ও সরকারি কাজে বাধা দেয়াসহ বিভিন্ন অপরাধে ১০টি মামলা রয়েছে।

শনিবার গ্রেপ্তার আসামিকে সীতাকুণ্ড থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‍্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আবছার।

এর আগে শুক্রবার দিবাগত রাত সোয়া ২টায় উপজেলার দক্ষিণ সোনাইছড়ি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত দেলোয়ার উপজেলার বাড়বকুণ্ডের মৃত রুহুল আমিনের ছেলে।

র‍্যাব জানায়, ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ সীতাকুণ্ড থানাধীন একটি ভাড়া বাসায় থাকেন। তার স্বামী পুলিশের কাছে আটক হয়ে জেলে যায়। এ কারণে তিনি তার সন্তানদের নিয়ে তার বাবার বাড়ি মুরাদপুরে চলে যান। গত ২৮ জুলাই সন্ধ্যায় তিনি খবর পান তার বাসায় ঢুকে মালামাল বের করে নিয়ে যাচ্ছে দুর্বৃত্তরা। তিনি সেখানে গিয়ে দেখেন ঘরের দরজা খোলা এবং জিনিসপত্র সব ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। পরে তিনি দেখেন দুর্বৃত্তরা তার ঘর থেকে দেড় লাখ টাকার মালামাল নিয়ে গেছে।

এসব মালামাল আনতে তিনি তার ভাগিনা ও ফুফাতো ভাইয়ের ছেলেসহ রাত সোয়া ১২টায় ঘর থেকে বের হন। পথে বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন রাস্তার ওপর দুর্বৃত্তরা তার ভাগিনা ও ভাইপোকে মারধর করে রেললাইনের একটি ঝুপড়ি ঘরে আটকে রেখে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ সময় ধর্ষণের ছবি মোবাইলে ধারণ করে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে পালিয়ে যায় তারা। যাওয়ার সময় তাদের কাছে থাকা নগদ ১০ হাজার টাকা ও তিনটি মোবাইল নিয়ে যায়।

পরে ভিকটিমের বড় ভাই ঘটনাটি জেনে তাকে উদ্ধার করে সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। এ ঘটনায় ভিকটিম বাদী হয়ে ৪ জনকে এজাহারভুক্ত ও একজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

এ ঘটনায় ২৯ জুলাই বাড়ককুণ্ড মিজিপাড়া এলাকা থেকে সাদ্দাম হোসেন ও মো. জাহেদ ওরফে মোস্তফা জাহেদকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

র‍্যাব কর্মকর্তা নুরুল আবছার বলেন, গোপন সূত্রের ভিত্তিতে খবর আসে এ মামলার এজাহারভুক্ত ২ নম্বর আসামি সোনাইছড়ি এলাকায় অবস্থান করছে। খবর পেয়ে শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে দেলোয়ারকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ, ডাকাতি, অস্ত্র, বিস্ফোরক, বিশেষ ক্ষমতা আইন, মারামারি, চুরি ও সরকারি কাজে বাধাদানসহ বিভিন্ন অপরাধে ১০টি মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তার আসামিকে সীতাকুণ্ড থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত