ঢাকা, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ আপডেট : ৪ মিনিট আগে
শিরোনাম

পাবনায় চাচাত ভাইকে কুপিয়ে খুন

  পাবনা প্রতিনিধি

প্রকাশ : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৮:২৩

পাবনায় চাচাত ভাইকে কুপিয়ে খুন
চাচাতো ভাইদের কুঠারের কোপে খুন হয়েছেন শরিফুল ইসলাম। ছবি: প্রতিনিধি
পাবনা প্রতিনিধি

বাঁশঝাড়ে বাঁশ কাটতে গিয়ে চাচাতো ভাইদের কুঠারের কোপে খুন হয়েছেন শরিফুল ইসলাম (৩৫) নামের এক যুবক। শুক্রবার সকালে পাবনা সদর উপজেলার ভাড়ারা ইউনিয়নের ভাড়ারা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

শরিফুল ইসলাম ইসলাম ভাড়ারা গ্রামের সামাদ সরদারের ছেলে। তিনি ইসলামী আন্দোলনের ভাড়ারা ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং প্রসাধনী ব্যবসায়ী ছিলেন। পারিবারিক বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

অভিযুক্ত দুই ব্যক্তি হলেন, স্বপন ও শাহীন। তারা মজনু সরদারের ছেলে এবং শরিফুলের চাচাত ভাই।

ভাড়ারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ বলেন, নিহত শরিফুলদের পরিবারের মধ্যে জমিজমা নিয়ে অভ্যন্তরীণ কোন্দল চলছিল। এ নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে সালিশি বৈঠক করেও সমাধান করা যায়নি। কারণ আদালতে মামলা চলমান রয়েছে।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, শরিফুল ইসলামের সাথে তার চাচাত ভাইদের বাঁশঝাড়ের মালিকানা নিয়ে বিরোধ চলছিল। শরিফুল ইসলাম শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে নিজ বাড়ির বাঁশঝাড়ে বাঁশ কাটতে যান। এ সময় তার চাচাত ভাইয়েরা শরিফুলকে বাধা দেন। এ নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে স্বপন ও শাহীন মিলে শরিফুলকে বাঁশ কাটার কুঠার দিয়ে কোপ দেন। এ সময় শরিফুলের বাবা ঠেকাতে গেলে তাকেও তারা আঘাত করেন। আশপাশের লোকজন গুরুতর আহত শরিফুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা এগিয়ে যাওয়ার পর অভিযুক্তরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান।

ওসি আরও জানান, পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। বিকেলে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহত যুবকের দাফন সম্পন্ন হওয়ার পর তার স্বজনরা মামলা করবেন বলে পুলিশকে জানিয়েছেন।

এদিকে, এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে স্থনীয়রা জানিয়েছে। তবে এলাকার আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে সদর থানার ওসি জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত