ঢাকা, বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ১৪ মিনিট আগে
শিরোনাম

ব্যাডমিন্টন খেলায় বাগবিতণ্ডা, ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল কিশোরের

  কুমিল্লা প্রতিনিধি

প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৪০

ব্যাডমিন্টন খেলায় বাগবিতণ্ডা, ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল কিশোরের
নিহত কলেজ শিক্ষার্থী। ছবি: প্রতিনিধি
কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ব্যাডমিন্টন খেলা নিয়ে বাগবিতণ্ডার জেরে এক কলেজ শিক্ষার্থীকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতে খুন করা হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানিয়েছে, হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয়া অন্তত আটজনই কিশোর বয়সী। স্থানীয়দের কাছে তারা কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য হিসেবে পরিচিত।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার আলকরা এলাকায় এই খুনের ঘটনা ঘটেছে। চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শুভরঞ্জন চাকমা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। রাত সাড়ে ১০ টায় পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরহেদ উদ্ধার করে।

নিহত ওই শিক্ষার্থীর নাম মো. পাভেল হোসেন (১৯)। তিনি চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গুণবতী এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে এবং ধোপাখিলা গ্রামের আবদুল হালিম ভূঁইয়ার নাতি। তিনি ফেনী মহিপাল সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। নিহত পাভেলের বাড়িতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া, বইছে শোকের মাতম।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার নিজ বাড়ি থেকে পাশের আলকরা ইউনিয়নের আলকরা গ্রামের নানার বাড়িতে বেড়াতে যান পাভেল। এদিন সন্ধ্যার পর ওই গ্রামের কয়েকজন তরুণের সঙ্গে ব্যাডমিন্টন খেলতে যান তিনি। রাত ৯টার দিকে অন্তত আটজন কিশোর খেলার মাঠে গিয়ে নিজেরা ব্যাডমিন্টন খেলবে বলে জানায়। এ সময় ওই কিশোররা পাভেল ও তার সঙ্গীদের মাঠ থেকে চলে যেতে বলে। কিন্তু তারা চলে যেতে রাজি না হলে তাদের মধ্যে বাগবিতণ্ডা শুরু হয়।

এক পর্যায়ে ওই কিশোররা পকেট ও কোমর থেকে ছুরি বের করে পাভেলকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত এবং মারধর করে। এর পর রক্তাক্ত অবস্থায় পাভেলকে খেলার মাঠে রেখে তারা পালিয়ে যায়। পরে এলাকার লোকজন পাভেলকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ঘটনার সময় পাভেলকে বাঁচাতে গিয়ে দুজন আহত হয়েছেন। তাদেরকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি শুভরঞ্জন চাকমা বলেন, খেলা নিয়ে বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে ওই ছেলেরা পাভেলকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতরা সকলেই স্থানীয় এলাকার কিশোর বলে জানতে পেরেছি। ঘটনার পর পরই তারা এলাকা থেকে পালিয়ে গেছে। আমরা তাদের পরিচয় সনাক্ত করে আটকের চেষ্টা করছি।

তিনি জানান, শুক্রবার সকালে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/জিকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত