ঢাকা, বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ৪ মিনিট আগে
শিরোনাম

কী নিয়ে বাঁচবে ছোট্ট রোহান?

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ২১:০৯  
আপডেট :
 ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ২১:১১

কী নিয়ে বাঁচবে ছোট্ট রোহান?
কী নিয়ে বাঁচবে রোহান। সংগৃহীত ছবি
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাবা মারা গেছেন বছর দুয়েক আগে। বাবার স্নেহবঞ্চিত শিশুটির শেষ আশ্রয়স্থল ছিলেন মা। এবার সেই মাও চলে গেলেন মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায়। ছোট্ট রোহান এখন কী নিয়ে বাঁচবে? এতো কষ্ট সে কী করে সইবে শিশুটি?

এ প্রশ্নটিই বার বার করছেন শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় প্রাইভেটকারচাপায় নিহত রুবিনা আক্তারের স্বজনরা। রুবিনার একমাত্র সন্তান রোহান খানের ভবিষ্যৎ নিয়ে দুশ্চিন্তায় তার মামা জাকির হোসেন ও খালারা।

তারা বলছেন, নিহত রুবিনার স্বামী ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমান দুই বছর আগে মারা যান। এরপর অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া একমাত্র ছেলে আরাফাত রহমান রোহান খানকে নিয়ে তেজগাঁওয়ের হোন্ডা গলিতে ঘর ভাড়ার সামান্য টাকা ও স্বজনদের সহায়তায় রোহানকে লেখাপড়া করাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু স্বামী মারা যাবার পর থেকে মানসিকভাবে তিনি বিধ্বস্ত ছিলেন। প্রায়ই তেজগাঁওয়ের বাসা থেকে বাবার বাড়ি হাজারীবাগে যেতেন রুবিনা আক্তার। তেমনি শুক্রবার দেবর নুরুল আমিনের সঙ্গে মোটরসাইকেলে রুবিনা আক্তার রাজধানীর তেজগাঁওয়ের বাসা থেকে হাজারীবাগে বাবার বাড়ি যাচ্ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বিপরীতে টিএসসি অভিমুখী সড়কে একটি প্রাইভেট কার পেছন থেকে তাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়। এতে নুরুল আমিন মোটরসাইকেলসহ এক পাশে ছিটকে পড়েন। রুবিনা গাড়ির নিচে চাপা পড়েন।

এ সময় গাড়ির বাম্পারে তার পোশাক আটকে যায়। চালক গাড়ির নিচে আটকে যাওয়া রুবিনাকে নিয়ে বেপরোয়া গতিতে টিএসসি হয়ে নীলক্ষেতের দিকে যান। নীলক্ষেতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তোরণের কাছে গাড়িটি আটকে রুবিনাকে জীবিত উদ্ধার করেন পথচারীরা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার কিছুক্ষণ পর তিনি মারা যান।

এ ঘটনায় রুবিনা আক্তারের ভাইয়ের করা মামলায় গাড়িরচালক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের চাকরিচ্যুৎ সহকারী অধ্যাপক আজহার জাফর শাহকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বর্তমানে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত