ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ৩০ মিনিট আগে
শিরোনাম

পাবনায় ভুল চিকিৎসায় প্রকৌশলীর মৃত্যু

  পাবনা প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:১৪

পাবনায় ভুল চিকিৎসায় প্রকৌশলীর মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত
পাবনা প্রতিনিধি

নাকের পলিপাসের অস্ত্রোপচারের সময় ভুল চিকিৎসা ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় সিরাজুল ইসলাম (৩০) নামের এক টেক্সটাইল প্রকৌশলীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার দুপুরে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে পাবনার পৌর সদরের গোপালপুরের লাহিড়ীপাড়া এলাকার ডিজিটাল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। সিরাজুল ইসলাম পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের তিলকপুর গ্রামের বাসিন্দা।

স্বজনেরা অভিযোগ করেন, এক সপ্তাহ আগে পাবনা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক চিকিৎসক হারুন-অর-রশিদের চেম্বারে চিকিৎসা নেন সিরাজুল। সে সময় চিকিৎসক তাকে লাহিড়ীপাড়া এলাকায় ডিজিটাল হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের পরামর্শ দেন।

স্বজনেরা জানান, ওই চিকিৎসকের পরামর্শে সিরাজুল গত মঙ্গলবার ঢাকা থেকে পাবনায় আসেন। পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে চিকিৎসক হারুন-অর-রশিদ ও পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক (অ্যানেসথেসিয়া) চিকিৎসক শামসুল হকের তত্ত্বাবধানে ওই হাসপাতালে পলিপাসের অস্ত্রোপচার করেন।

পরিবারের অভিযোগ, অস্ত্রোপচার শেষে চিকিৎসকেরা চলে যাওয়ার পরপরই রোগীর অবস্থা অবনতি হতে থাকে। এ সময় চিকিৎসক ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ডাকলেও তারা গুরুত্ব দেয়নি। রাত ৮টার দিকে চিকিৎসকেরা দেখেন রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে অবস্থা বেগতিক দেখে চিকিৎসক হারুন-অর-রশিদ, শামসুল হক এবং হাসপাতালের ম্যানেজারসহ কর্তৃপক্ষ পালিয়ে যান। এ বিষয়ে জানতে চিকিৎসক হারুন-অর-রশিদের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে অ্যানেসথেসিয়া চিকিৎসক শামসুল হক বলেন, আমি যখন তাকে অ্যানেসথেসিয়া করি তখন তিনি সুস্থ ছিলেন। অস্ত্রোপচারের পর তার জ্ঞান ফিরেছিল, সে সময় তার সঙ্গে আমার কথাও হয়েছে। পরে তার মৃত্যু কীভাবে হলো এটা এই মুহূর্তে বলতে পারব না। তবে আমাদের ভুল চিকিৎসায় তার মৃত্যু হয়নি।

পাবনা সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী বলেন, অভিযোগ দিলে আমরা তদন্ত করে দেখব।

পাবনার পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্সি বলেন, খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত