ঢাকা, রোববার, ২৮ মে ২০২৩, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ আপডেট : ৬ মিনিট আগে
শিরোনাম

ছেলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও অর্থ আত্মসাতের মামলা

  চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৩ মার্চ ২০২৩, ১৭:১৬

ছেলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও অর্থ আত্মসাতের মামলা
নিজের ছেলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও অর্থ আত্মসাতের মামলা করেছেন বৃদ্ধ মুয়াজ্জিন। ছবি: প্রতিনিধি
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

নিজের ছেলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও অর্থ আত্মসাতের মামলা করেছেন এক বৃদ্ধ মুয়াজ্জিন। মামলায় তিনি ছেলের বিরুদ্ধে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি ও তিন লাখ সাত হাজর ৪৩৫ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেন।

বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ফারজানা ইয়াসমিনের আদালতে এই মামলা দায়ের করা হয়। মামলাটি আমলে নিয়ে লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার একমাত্র আসামি মো. ইয়াসিন (৪৫) ওই মুয়াজ্জিনের ছেলে।

হাফেজ আবুল মোজাফফর (৭৮) লোহাগাড়ার চরম্বা মাইজভিলা এলাকার মৃত মৌলভী লাল মিয়ার ছেলে। তিনি নগরের গণি বেকারি মোড় হযরত মোল্লা মিসকিন শাহ (রাহ.) মসজিদে দীর্ঘদিন ধরে মুয়াজ্জিন হিসেবে কর্মরত আছেন।

মামলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, প্রথম স্ত্রী অসুস্থ হলে ২০১১ সালে দ্বিতীয় বিয়ে করেন ভুক্তভোগী হাফেজ মোজাফফর। ২০১৪ সালে তার প্রথম স্ত্রী মারা যান। অভিযুক্ত ইয়াসিন তার প্রথম স্ত্রীর সন্তান। প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর থেকে ইয়াসিন বাবার বাড়িটি একা ভোগদখল করতে চান। নানা সময়ে ইয়াসিন তার বাবার কাছ থেকে বিভিন্ন প্রয়োজনের কথা বলে মোট ৩ লাখ ৭ হাজার ৪৩৫ টাকা ধার নেন। ২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর একটি দুর্ঘটনায় ভুক্তভোগী মোজাফফরের পা ভেঙে যায়। ওই সময় তিনি স্বাভাবিক চলাফেরা করতে পারতেন না।

এ সুযোগে ২০১৬ সালের ৯ অক্টোবর প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে বাবার কাছ থেকে জোরপূর্বক ১৬ শতাংশ জমি লিখে নেন অভিযুক্ত ইয়াসিন। এরপর থেকে ইয়াসিন তার বাবাকে দ্বিতীয় স্ত্রী নিয়ে বাড়ি থেকে চলে যেতে হুমকি দিতে থাকেন। সবশেষ গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ও ১৬ মার্চ হাফেজ মোজাফফর ও তার দ্বিতীয় স্ত্রীকে বাড়ি থেকে চলে যেতে হুমকি দেন ইয়াসিন। এ সময় ইয়াসিনের কাছ থেকে ধারের টাকা ও জোর করে লিখে দেয়া জমি ফেরত চান হাফেজ মোজাফফর। এরপর জমি ফেরত দিলে বাবার কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা দাবি করেন ইয়াসিন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের (বিএইচআরএফ) মহাসচিব অ্যাডভোকেট জিয়া হাবীব আহসান বলেন, প্রাণনাশের হুমকি ও ভরণ-পোষণ না দেয়াসহ একাধিক অভিযোগে ছেলে মো. ইয়াছিনের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ বাবা হাফেজ আবুল মোজাফফর আদালতে মামলার আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে মামলাটি গ্রহণ করেন এবং লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

২০১৩ সালে বাংলাদেশ সরকার সন্তান কর্তৃক পিতা-মাতার ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করার জন্য পিতা-মাতার ভরণ-পোষণ আইন-২০১৩ প্রবর্তন করে। আইন অনুযায়ী, পিতা-মাতা বা দাদা-দাদি বা নানা-নানিকে ভরণ-পোষণ না দিলে তা অপরাধ হিসেব গণ্য হবে। এই অপরাধের শাস্তি সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা জরিমানা এবং জরিমানার টাকা না দিলে সর্বোচ্চ তিন মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে। যে সন্তানের ওপর ভরণ-পোষণের দায়িত্ব বর্তায় সেই সন্তানের স্ত্রী বা স্বামী বা ছেলে-মেয়ে অথবা কোনো নিকট আত্মীয় এই আইন অনুযায়ী ভরণ-পোষণ দিতে বাধা দিলে বা অসহযোগিতা করলে তাকেও একই শাস্তি দেয়ার বিধান রয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমপি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত