ঢাকা, রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ আপডেট : ৪৬ মিনিট আগে
শিরোনাম

লিফট কিনতে পাবিপ্রবির প্রতিনিধি দলের তুরস্ক সফর স্থগিত

  পাবনা প্রতিনিধি

প্রকাশ : ০২ জুন ২০২৩, ১৬:১১  
আপডেট :
 ০২ জুন ২০২৩, ১৮:২১

লিফট কিনতে পাবিপ্রবির প্রতিনিধি দলের তুরস্ক সফর স্থগিত
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন ভবন। ছবি: সংগৃহীত

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনের আদেশে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) ছয় কর্মকর্তার তুরস্ক সফর স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পাবিপ্রবির ৬ জনের লিফট কিনতে ঠিকাদারের টাকায় ৬ জুন তুরষ্কে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হওয়ায় সফর স্থগিত ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার (২ জুন) বিকেসাােড় চারটায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের সহকারী পরিচালক মো. ফারুক হোসেন চৌধুরী।

ফারুক হোসেন চৌধুরী বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের নির্দেশক্রমে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলের তুরস্ক যাত্রা স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন এ সফরের সকল আয়োজন স্থগিত রাখতে বলেছেন।

এর আগে শুক্রবার (২ জুন) সকালে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ৬সদস্য'র প্রতিনিধি দল লিফট কিনতে তুরস্কে ভ্রমণের যাওয়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিশ^বিদ্যালয়ের রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য , বীর মুক্তিযোদ্ধা অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু।

তিনি প্রেস ব্রিফিং করে সাংবাদিকদের বলেন, লিফট কিনতে বিদেশ যাওয়ার বিষয়টি দু:খজনক। বর্তমান যুগে লিফট কিনতে বিদেশ যাওয়ার প্রয়োজন হয় না। উন্নতমানের লিফট যারা সরবরাহ করেন তাদের প্রতিনিধি এ দেশেই রয়েছেন। তাদের মাধ্যমে দেশে থেকে লিফট কেনা সম্ভব। তিনি বলেন, পাবিপ্রবি ভিসি বলেছেন এই টাকা বিশ^বিদ্যালয় বা সরকারের টাকা না। পিন্টু চৌধুরি বলেন এই টাকা তো আকাশ থেকে পড়েনি। এই টাকা তো সরকার থেকে বরাদ্দ করা টাকা। ঠিকাদারের টাকাও সরকারের টাকা। ঠিকাদরের সদিচ্ছা থাকলে তিনি কাউকে প্রভাবিত না করে টাকাগুলো শিক্ষার্থীদের পিছনে ব্যয় করতে পারতেন। অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু বলেন, লিফট কিনতে বিদেশ যাওয়া একটা আনন্দ। তিনি প্রেস ব্রিফিং-এ বিদেশ না গিয়ে সেই টাকা বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কল্যাণে ব্যয় করার পরামর্শ দেন । তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা তো শিক্ষকদের কাছ থেকে শিখবে।কিন্তু শিক্ষার্থীরা যদি দেখে, তাদের শিক্ষকরা ঠিকাদারের টাকায় বিদেশ ভ্রমণ করেন তাহলে তা কী শিখবে?

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন এবং প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. এসএম মোস্তফা কামাল খান এর বক্তব্য নেওয়ার জন্য ফোন করলে তারা ফোন কল রিসিভ করেননি। তবে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কামাল হোসেন জানান, রাষ্ট্রপতির নির্দেশে সফর স্থগিত হয়েছে। তিনি এর বেশি মন্তব্য করেননি।

উল্লেখ্য,পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পাবিপ্রবি) নির্মাণাধীন পাঁচটি নতুন ভবনের জন্য ৫টি লিফট কিনতে তুরস্কে যাওয়ার কথা ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ- উপাচর্যসহ ৬ জনের। আগামী মঙ্গলবার (৬ জুন) প্রতিনিধি দলের তুরস্কের উদ্দেশে যাত্রা করার কথা ছিল। এতে ব্যয় ধরা হয়েছিল ২৫ লাখ টাকা। এ ব্যাপারে গত ১৫ মে পাবিপ্রবির প্রকল্প পরিচালক লে. কর্নেল (অব.) জি এম আজিজুর রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বিষয়টি রেজিস্ট্রার বিজন কুমার ব্রহ্মকে জানানো হয়। এমন আয়োজনে পাবনার বিভিন্ন মহলে সমালোচনার ঝড় ওঠে। নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা ওই সফর বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছিলেন।

আরও পড়ুন: শিক্ষা খাতে বরাদ্দ বাড়ল সাড়ে ৬ হাজার কোটি টাকা

বাংলাদেশ জার্নাল/এমপি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত