ঢাকা, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ আপডেট : ৩৫ মিনিট আগে
শিরোনাম

আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৪৪তম জাতীয় সমাবেশ আজ

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৬:২৬

আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৪৪তম জাতীয় সমাবেশ আজ
ফাইল ছবি

বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৪৪তম জাতীয় সমাবেশ-২০২৪ আজ। উৎসাহ-উদ্দীপনা আর নানান আয়োজনে বাহিনীর গাজীপুর সফিপুরে আনসার একাডেমিতে দিবস উপলক্ষে কুচকাওয়াজের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সালাম গ্রহণ ও মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করবেন।

রোববার আনসার সদরদপ্তরের উপ-পরিচালক (গণসংযোগ কর্মকর্তা) জাহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, জাতীয় সমাবেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, সিনিয়র সচিব, মোস্তাফিজুর রহমান, বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল একেএম আমিনুল হক, অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজিম উদ্দিন, আনসার ও ভিডিপি একাডেমির কমান্ড্যান্ট নূরুল হাসান ফরিদী, বাহিনীর উপমহাপরিচালক, অন্যান্য কর্মকর্তা ও আনসার- ভিডিপি সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন।

এছাড়া আরও উপস্থিত থাকবেন মন্ত্রী পরিষদের সদস্য, সংসদ সদস্য, মন্ত্রী পরিষদ সচিব, তিন বাহিনী প্রধান, সিনিয়র সচিবসহ বিভিন্ন বাহিনীর প্রধান, কূটনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, সামরিক ও বেসামরিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

১৯৪৮ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি আনসার বাহিনী প্রতিষ্ঠিত হয়। রাজধানী শহর থেকে সমতল ও পার্বত্যঞ্চলসহ তৃণমূল পর্যন্ত বিস্তৃত এ বাহিনীর সদস্যরা। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ বাহিনীর সদস্যরা আইন শৃঙ্খলা রক্ষা, জননিরাপত্তা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।

আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ২টি পূর্ণাঙ্গ মহিলা আনসার ব্যাটালিয়ন এবং বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সদস্যদের সমন্বয়ে গঠিত আনসার গার্ড ব্যাটালিয়ন (এজিবি)-সহ সর্বমোট ৪২টি ব্যাটালিয়ন রয়েছে।

পার্বত্যঞ্চলে ১৬টি ব্যাটালিয়নের সদস্যরা 'অপারেশন উত্তরণ' এ যৌথ ও একক ক্যাম্পে দেশের অখণ্ডতা রক্ষা, পাহাড়ি বাঙালি সম্প্রীতি রক্ষা এবং সন্ত্রাস দমনে দায়িত্ব পালন করছেন। এই দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে এ যাবৎ বিভিন্ন সময় ১৯ জন সদস্য জীবন আত্মোৎসর্গ করেছেন। এছাড়া পার্বত্যঞ্চলের হিল আনসার ও হিল ভিডিপি সদস্যরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন।

সমতল এলাকায় আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্যরা জাতীয় সংসদ সচিবালয়, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, রাষ্ট্রীয় তোষাখানাসহ সমতল এলাকার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাসহ মোবাইল কোর্ট ও ভেজাল বিরোধী অভিযান, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমন, চোরাচালানরোধ, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প, মেট্রোরেল, পায়রা বন্দর, বিমান বন্দর, প্রেষণে এসএসএফ, র‍্যাব, এনএসআই, ডিজিএফআই এ দায়িত্ব পালন করছে।

বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত আনসার গার্ড ব্যাটালিয়ন (এজিবি) এর সদস্যরা কূটনৈতিক জোন ও বিদেশি রাষ্ট্রদূতদের নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করছে। বর্তমানে মার্কিন রাষ্ট্রদূত ও ফিলিস্তিন রাষ্ট্রদূতের নিরাপত্তায় কাজ করছে।

বর্তমানে দেশের সব বিমান বন্দর, সমুদ্র বন্দর, ইপিজেডসহ গুরুত্বপূর্ণ ৫ হাজারের অধিক প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় প্রায় ৫৫ হাজার অঙ্গীভূত আনসার সদস্য নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব পালন করছে। এছাড়া বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব ঈদ, পূজা-পার্বনসহ বর্ষবরণ, শপিং মল, বাণিজ্য মেলা ও বই মেলা, রেল স্টেশন, ট্রাফিক কন্ট্রোলসহ প্রভৃতি ক্ষেত্রে সাধারণ আনসার সদস্য-সদস্যারা জননিরাপত্তা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করে।

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, ব্যালট বাক্স, ভোট কেন্দ্রের নিরাপত্তা ও ভোটারদের শৃংখলভাবে ভোটদান নিশ্চিত করতে ৫ লাখ ১৭ হাজার, ১৪৩ জন সদস্য-সদস্যারা দায়িত্ব পালন করেছে। ২০২৩-২৪ সালে 'অপারেশন সুরক্ষিত যাতায়াত' এর অধীনে কনকনে শীত ও ঘন কুয়াশার মধ্যে রেল লাইনের নিরাপত্তায় নিরলসভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।

প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলাসহ অগ্নি নির্বাপণ, উদ্ধার তৎপরতা, অগ্নিদগ্ধ জনগণের চিকিৎসা সহায়তা, উদ্ধার কর্মীদের খাদ্য-সামগ্রী বিতরণ করে আনসার বাহিনীর সদস্যরা ইতোপূর্বেও সহমর্মিতার পরিচয় দিয়ে আসছেন।

গ্রামাঞ্চলে আনসার ভিডিপির সদস্য-সদস্যারা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সহায়তা, বেআইনি অস্ত্র উদ্ধার এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করছে। এছাড়া বিভিন্ন কারিগরি প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নিজেরা স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি দেশের সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখছেন।

বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর একাডেমি বর্তমান অবস্থানে ১৯৭৬ সালে গোড়াপত্তন হয়। ধাপে ধাপে বর্তমান রূপ পায়। ১৯৯৬ সালে নামকরণ হয় আনসার-ভিডিপি একাডেমি। এখানে নব নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারী, প্রশিক্ষক-প্রশিক্ষিকা, আনসার ব্যাটালিয়ন, মহিলা আনসার ও সাধারণ আনসারসহ ভিডিপি সদস্যদের মৌলিক, পেশাভিত্তিক, আধুনিক কারিগরি প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। এছাড়া সারাবছর ধরে যুগোপযোগী বিভিন্ন ট্রেডে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে সদস্যদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।

আনসার-ভিডিপি একাডেমিতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্রীড়া ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনের লক্ষ্যে বাহিনীর ক্রাড়ীবিদদের বিভিন্ন ইভেন্টে নিয়মিতভাবে আধুনিক অনুশীলনের ব্যবস্থা রয়েছে।

সূত্র: বাসস

বাংলাদেশ জার্নাল/আইজে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত