ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ আপডেট : ১২ মিনিট আগে
শিরোনাম

শিবিরের বিরুদ্ধে কথা বলায় এখন জীবন হুমকিতে: বুয়েট শিক্ষার্থী

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ২০:২৬  
আপডেট :
 ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ২০:৩৪

শিবিরের বিরুদ্ধে কথা বলায় এখন জীবন হুমকিতে: বুয়েট শিক্ষার্থী
ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েটে) ছাত্ররাজনীতি বন্ধ রাখার দাবিতে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা। ছয় দফা দাবিতে তারা ক্লাস পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি পালন করছেন তারা। এর বিপরীতেও রয়েছেন কিছু শিক্ষার্থী, যারা ক্যাম্পাসে নিয়মতান্ত্রিক প্রগতিশীল রাজনীতির পক্ষে। রাজনীতির পক্ষের ছয় শিক্ষার্থী দাবি করেছেন, আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে তাদের হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

বুধবার (৩ এপ্রিল) বিকেলে বুয়েটের এম এ রশিদ প্রশাসনিক ভবনের সামনে সংবাদ সম্মেলন করে এই অভিযোগ করেন ছয় শিক্ষার্থী।

তারা হলেন- ক্যামিক্যাল অ্যান্ড ম্যাটারিয়ালস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০ ব্যাচের শিক্ষার্থী আশিক আলম, সাগর বিশ্বাস, অরিত্র ঘোষ ও ২১ ব্যাচের অর্ঘ দাস, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০ ব্যাচের শিক্ষার্থী তানভীর স্বপ্নীল ও বিষ্ণুদত্ত চাঁদ।

সংবাদ সম্মেলন আশিকুল আলম বলেন, ‘আমাদের জীবন নিয়ে হুমিক দেয়া হচ্ছে। আমরা আজ উপাচার্যের কাছে সবকিছুর প্রমাণ নিয়ে লিখিত আবেদন করেছি। আমরা ছাড়াও আরও যারা ভুক্তভোগী রয়েছে নিরাপত্তার খাতিরে তাদের নামও আমরা লিখিত আবেদনে উল্লেখ করেছি যেন এটি বন্ধ হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘যেভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমাদের থ্রেট এবং বুলিং করা হচ্ছে, তা আমরা নিতে পারছি না। আমাদের মারার মতো হুমকি দেয়া হচ্ছে। যারা আমাদের হুমকি দিচ্ছে তাদের নামসহ আমরা লিখিত আবেদন দিয়েছি।’

পরিবারের কাছেও ফোন যাচ্ছে বলে জানান আশিক। বলেন, ‘এই সবকিছুই করা হচ্ছে কারণ আমরা হিজবুত তাহরীর এবং শিবিরের রাজনীতির বিরুদ্ধে কথা বলছি। বাঁশের কেল্লাসহ বিভিন্ন নিষিদ্ধ গ্রুপে আমাদের ছবি পাঠানো হচ্ছে, যার স্ক্রিনশটসহ সব আলামত আমরা লিখিত আবেদনে উল্লেখ করেছি। সেসব গ্রুপে আমাদের জীবনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে।’

শিক্ষার্থীরা যখন আন্দোলন করছিল তখন কোথাও হিজবুত তাহরীর, শিবির বা ছাত্রদলের নাম উল্লেখ ছিল না বলে ভুক্তভোগী এই ছাত্র। প্রগতিশীল রাজনীতিকে বন্ধ করে বুয়েটে উগ্রবাদি গোষ্ঠির প্রচারণা বন্ধের দাবিও জানান তিনি।

২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর বুয়েটের তৎকালীন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নির্যাতনে শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ মারা যান। এর প্রতিবাদে বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে নামেন। এরপর ২০১৯ সালের ১১ অক্টোবর বুয়েটে সব রাজনৈতিক সংগঠন এবং এর কার্যক্রম নিষিদ্ধ করে প্রজ্ঞাপন জারি করে বুয়েট কর্তৃপক্ষ। সোমবার (১ এপ্রিল) ওই প্রজ্ঞাপনের কার্যকারিতা স্থগিত করেন হাইকোর্ট।

এদিকে আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার জন্য বুয়েটের উপাচার্যকে আহ্বান জানিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

বাংলাদেশ জার্নাল/টিআর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত