ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ৭ চৈত্র ১৪২৬ অাপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪৪

প্রিন্ট

বটি দিয়ে স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে খুন!

বটি দিয়ে স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে খুন!
নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের মাঝপাড়া গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে এসে প্রাণ গেল কাবিল বিশ্বাস (২২) নামে এক ব্যক্তির। এ ঘটনায় স্ত্রী রুবি খাতুনকে (১৮) আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, আত্মীয়তার সম্পর্কের জের ধরে পাবনার চাটমোহর উপজেলার ধানকুরিয়া চরপাড়া গ্রামের নওশের বিশ্বাসের ছেলে ভাঙরী ব্যবসায়ী কাবিল বিশ্বাসের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে রুবি খাতুনের। পাঁচ মাস প্রেমের সম্পর্ক চলার চার মাস আগে আদালতে হলফনামার মাধ্যমে তাদের বিয়ে হয়। রুবি গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা মাঝপাড়া গ্রামের মৃত মকছেদ আলীর মেয়ে।

বিয়ের পর থেকেই কাবিল হোসেন যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খেয়ে স্ত্রীর ওপর যৌন নির্যাতন চালাতে থাকে। এর ফলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। এরই এক পর্যায়ে নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গত দুই সপ্তাহ আগে রুবি খাতুন তার বাবার বাড়িতে চলে আসে।

শুক্রবার কাবিল তার শ্বশুর বাড়িতে যান স্ত্রীকে আনতে। রাতে পুনরায় যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খেয়ে যৌন নির্যাতন শুরু করলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ শুরু হয়। এক পর্যায়ে ভোররাতে বটি দিয়ে স্বামী কাবিলের অণ্ডকোষ কেটে দেয় স্ত্রী। ফলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় কাবিল বিশ্বাস ঘটনাস্থলেই মারা যায়। সকালে ঘটনাস্থলে এসে গুরুদাসপুর থানা পুলিশ রুবিকে আটক করে। এ সময় কাবিলের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিম রেজা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। রুবির বরাত দিয়ে তিনি জানান, বিয়ের পর থেকে তাকে দিনরাত যৌন নির্যাতন করে আসছিল তার স্বামী কাবিল বিশ্বাস। স্বামীকে অনেক নিষেধ করার পরও মাত্রাতিরিক্ত যৌন নির্যাতন করতো। অবশেষে আতঙ্কিত হয়ে ধারালো অস্ত্র দ্বারা স্বামীর অণ্ডকোষ কেটে দেয় রুবি।

ওসি জানান, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধারের পাশাপাশি ভিকটিমকে আটক করা হয়েছে। রুবি ঘটনার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

আরো পড়ুন: সুন্দরী শবনমের অভিনব প্রতারণা

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close