ঢাকা, রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৭ জুলাই ২০১৯, ০০:৪৮

প্রিন্ট

‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’-এর উদ্বোধন আজ

‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’-এর উদ্বোধন আজ
বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি

বেনাপোলবাসীর দীর্ঘদিনের আশা আকাঙ্খা পূরণ হতে যাচ্ছে। আজ বুধবার সকালে উদ্বোধন হতে যাচ্ছে বেনাপোল-ঢাকা রুটের নতুন ট্রেন ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’। বেনাপোল থেকে ছেড়ে যশোর, ঈশ্বরদী হয়ে ঢাকায় যাতায়াত করবে দ্রুতগামী ট্রেনটি। সকাল সাড়ে ১১টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঢাকা থেকে এ ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন করবেন বলে রেলপথ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানানো হয়েছে।

ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন শেষ হয়েছে। এ উপলক্ষে বেনাপোল রেলস্টেশনে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. শামসুজ্জামানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংযুক্ত থাকবেন। এর আগে গত ৩ জুলাই রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন ও ১৩ জুলাই রেলওয়ের মহাপরিচালক শামছুজ্জামান যশোর ও বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টার সাঈদুজ্জামান জানান, উদ্বোধন শেষে ট্রেনটি বেলা একটার দিকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবে। তবে এই যাত্রায় শুধুমাত্র রেলওয়ের কর্মকর্তারা অংশ নেবেন। আর যাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করবে আগামী ২৭ জুলাই থেকে। বেনাপোল-ঢাকা রুটের এই ট্রেনটি চলবে সপ্তাহে ছয় দিন। সাড়ে সাত ঘণ্টায় পৌঁছানো যাবে ঢাকায়। বেনাপোল-ঢাকা রুটে বেনাপোল থেকে সোয়া একটায় ট্রেনটি ট্রেনটি ছেড়ে যশোর রেলওয়ে জংশনে পৌঁছে ১৫ মিনিটের বিরতি করবে। এ সময়ের মধ্যে যাত্রী ওঠানো ও রেলের ইঞ্জিন ঢাকামুখী ঘোরানো হবে। এরপর ঈশ্বরদী গিয়ে ট্রেনের চালকসহ অপারেশনাল কর্মী বদলের জন্য আরও ১৫ মিনিটের বিরতি থাকবে। পরে ট্রেনটি ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে শেষ গন্তব্যে ছেড়ে যাবে। তবে এর আগে ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে যাত্রী নামানোর জন্য কিছুক্ষণের জন্য ট্রেনটি থামানো হবে। আবার ঢাকা থেকে রাত ১২.৪০ মিনিটে ছেড়ে বেনাপোল পৌছবে পরদিন সকাল ৮ টায়। ট্রেনটিতে ১২টি বগি থাকবে। দুটি এসি চেয়ার, একটি কেবিন ও বাকি নয়টি থাকবে চেয়ার কোচ। মোট আসন সংখ্যা হবে ৮৯৬। সপ্তাহে ৬ দিন নন স্টপ এ ট্রেনটি বেনাপোল-ঢাকা চলাচল করবে। ভাড়ার তালিকা অনুযায়ী শোভন চেয়ার ৫৬৪ টাকা, এসি চেয়ার ১০১৩ টাকা এসি-সীট ১২১৩ টাকা, এসি ¯িøপার-১৮৬৯ নির্ধারণ করা হয়েছে। আসছে কোরবানির ঈদযাত্রায় দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ এই ট্রেনে চলাচলের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

স্থানীয় ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ জানান, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম জেলা শহর যশোরের বেনাপোলকে উন্নয়নের দ্বার প্রান্তে পৌঁছে দিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা দেওয়া ‌‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি কার্যকরী ভূমিকা রাখবে। ঢাকা-বেনাপোল রেল চালু শুরু হলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নও হবে সমৃদ্ধিশালী। দেশের বিভিন্নস্থান থেকে প্রায় সাত হাজার পাসপোর্টধারীযাত্রী প্রতিদিন বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে যায়। তাদের বেশির ভাগই ঢাকা থেকে আসে। ঢাকা থেকে বেনাপোলে আসার একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে বাস। ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হলে এই বাস নির্দিষ্ট সময়ে ঢাকা কিংবা বেনাপোলে পৌঁছাতে পারে না। এর ফলে যাত্রীদের অবর্ণনীয় দুর্দশা হয়। ট্রেনটি চালু হলে বেনাপোল-ঢাকার মধ্যে হাজার হাজার যাত্রীর যাতায়াত সহজ হবে। ব্যবসা-বাণিজ্যে গতি বাড়বে। মানুষ রাজধানী ঢাকা থেকে যানজট মুক্ত নিরাপদে বেনাপোল আসতে পারবে। কারণ বেনাপোল আন্তর্জাতিক বর্ডারসহ এখানে রয়েছে ভারত বাংলাদেশ তথা এশিয়া মহাদেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর। ব্যবসা বাণিজ্য, পাসপোর্টযাত্রীসহ এ অঞ্চলের মানুষের জন্য এ রেল হবে মাইলফলক।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
close
close