ঢাকা, শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৭ জুলাই ২০১৯, ১৩:৩৪

প্রিন্ট

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে হাত হারালো শিশু মীম

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে হাত হারালো শিশু মীম
রূপগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে একটি বহুতল বাড়ির মালিক ও নারায়ণগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর অধীনে পূর্বাচল জোনালের গাফিলতিতে বিদ্যুৎ স্পর্শে হাত হারিয়েছে ৮ বছরের স্কুল শিক্ষার্থী মীম আক্তার। গত শুক্রবার( ৫ জুলাই) উপজেলার চনপাড়া ১ নং ওয়ার্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মীম আক্তারের বাবা সিরাজুল ইসলাম জানান, তিনি উপজেলা চনপাড়া এলাকার বাসিন্দা শাহ আলম মিয়ার বহুতল ভবনের ২য় তলায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছেন। ওই ভবন নির্মানের পূর্বেই রাস্তার পাশে থাকা ১১ হাজার বোল্টের বিদ্যুৎ খুঁটি ঝুঁকিপূর্ণ ছিলো। একাধিকবার এ খুঁটিতে থাকা ট্রান্সফরমার থেকে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। সে সময় স্থানীয়রা পূর্বাচল জোনাল অফিসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের মৌখিকভাবে এ খুঁটি সরিয়ে নেয়ার দাবি করেছিলেন। কিন্তু বিদ্যুৎ বিভাগের কেউ তাতে কর্নপাত করেননি।

তাছাড়া বাড়ির মালিক শাহ আলমকে বারবার বলার পরও কোনো নিরাপদ ব্যবস্থা নেয়নি। ফলে অনিরাপদ ১১ হাজার বোল্ট তারে তার মেয়ে ২য় শ্রেনীর শিক্ষার্থী মীম আক্তার শুক্রবার সকালে কাপড় শুকাতে যেয়ে বিদ্যুতায়িত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

এদিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৩ জুলাই তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে চিকিৎসক তার হাত কেটে ফেলেন। এছাড়াও ওই শিক্ষার্থীর পেটেও গুরুতর আঘাত পান। বর্তমানে শিশুটি শঙ্কামুক্ত নয় বলে দাবি করেন চিকিৎসক। এ ঘটনায় ১৫ জুলাই সকালে ক্ষতিপূরন চেয়ে ও আইনি বিচারের দাবিতে ভুক্তভোগীর পিতা সিরাজুল ইসলাম রূপগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। স্থানীয়রা জানান, এ বিদ্যুৎ এর খুঁটিতে বেশকয়েকবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। পরে ডেমরা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বাড়ির মালিক শাহ আলম বলেন, একাধিকবার বিদ্যুৎ বিভাগকে জানিয়েছি কিন্তু তারা খুঁটি সরায়নি। তাই এমনটা ঘটেছে। শিশু মীমের চিকিৎসা খরচ চালাতে চাইলেও তার পিতা সিরাজুল নিচ্ছে না বলে দাবি করেন তিনি। এ সময় তিনি অভিযোগ করে বলেন, বিদ্যুতের লোকেদের খুঁটি সরিয়ে নিতে বললে ৮০ হাজার টাকা চায়। তা দিতে পারিনি বিধায় তারা কেউ যোগাযোগ করেনি।

এ বিষয়ে পূর্বাচল জোনাল কার্যালয়ের ডিজিএম আব্দুর রহিম বলেন, চনপাড়ার এ খুঁটি বিষয়ে জেনেছি। ঘটনা দুঃখজনক। যে সকল কর্মকর্তা জানার পরও ব্যবস্থা নেয়নি তা খতিয়ে দেখা হবে।

এ প্রসঙ্গে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদ হাসান বলেন, এ ধরনের অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা তদন্ত করে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত