ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৫০

প্রিন্ট

কলাগাছিয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের কমিটি বিলুপ্ত চান অলি খান

কলাগাছিয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের কমিটি বিলুপ্ত চান অলি খান
জার্নাল ডেস্ক

প্রায় এক যুগ ধরে কলাগাছিয়া ইউনিয়নে সচ্ছ কমিটি নেই বলে জানিয়েছেন পটুয়াখালি গলাচিপার কলাগাছিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অলি খান। সোমবার গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষৎকারে তিনি এসব কথা বলেন।

অলি খান জানান, যখন যে সংসদ সদস্য ক্ষমতায় থাকেন তখন সেই সংসদ সদস্যদের পকেট কমিটি দিয়ে চলে এ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ।

গোলাম মাওলা রনির সময়ে ৫ বছর সাংগঠনিক কোনো কাজে যুক্ত থাকতে না পারার কথা উল্লেখ করে অলি খান বলেন, তখন আমরা ছিলাম নিরুপায়। কিন্তু নির্বাচনে আমরা পরিশ্রম করেই তাকে সংসদ বানিয়েছি। রনি সাহেবের সময়ে একটি পকেট কমিটি হয়, আবার অন্য দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সাবেক সংসদ সদস্য খ ম জাহাঙ্গীর হোসেনের সহায়তায় আরেকটি কমিটি হয়। সে সময়ে গলাচিপায় বসে তারা কলাগাছিয়ার ইউনিয়ন কমিটি গঠন করেন, এবং সেখানে আমাকে সহ সভাপতির পদ দিয়ে রাখেন। অথচ আমি জানতাম না। ইউপি নির্বাচনের সময় কমিটির কাগজ তুলে দেখি আমাকে সহ-সভাপতি ও বিএনপি ঘরানার লোকদের সদস্য করে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

অলি খান অভিযোগ করে বলেন, এই কমিটিটি ভেঙ্গে দেবার জন্য খ ম জাহাঙ্গীর সাহেব সহ গলাচিপার নেতাদের সাথে নিয়ে এলাকার বাশঁবাড়িয়া হাইস্কুলে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। তখন আমরা এই কমিটি ভাঙার দাবি জানালে, উপজেলা নেতাকে নিয়ে খ ম জাহাঙ্গীর একটি সচ্ছ কমিটি করার কথা বলে গেলেও ৬ বছর পার হওয়ার পরেও সেই কমিটি এখনও বহাল রয়েছে। তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন, ৯টি ওয়ার্ডে সমন্বয় রেখে কমিটি গঠন করা হয়নি। এই কমিটি দিয়েই আবার নৌকা প্রতীকে ইউনিয়ন কাউন্সিল হয়। ওই কাউন্সিলে কলাগাছিয়া ও খারিজ্জমাসহ ৩ ওয়ার্ডে ভোটার করা হয় ৪৭ জনকে আর কল্যান কলস ও বাশবাড়িয়া ৬টি ওয়ার্ডে মাত্র ৩০জন ভোটার করা হয়। যা একজন ব্যক্তির সব পছন্দের লোক।

নতুন সংসদ সদস্যর শাহজাদা সাজুর সহায়তা চেয়ে কাছে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রাণ হচ্ছে তৃনমূল আর সে তৃনমূলেও যদি বছরের পর বছর পকেট কমিটি করে ব্যক্তি স্বার্থ হাসিল করে তাহলে এখানে দলের শুনামহানী হবে। তাই, ৯টি ওয়ার্ডের সমন্বয় করে ও সচ্ছ ভোটের মাধ্যমে একটি কমিটি গঠন করা হোক। সেখানে যার হাতে নেতৃত্ব যাবে আমরা তার সাথে এক হয়ে কাজ করে আওয়ামী লীগের শুনাম বৃদ্ধির চেষ্টা করবো এবং সংগঠনকে শক্তিশালী করবো।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত