ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৫ আগস্ট ২০১৯, ২০:৪৭

প্রিন্ট

‘পরাজিত শক্তি দেশকে অস্থিতিশীল করতে চেয়েছিলো’

‘পরাজিত শক্তি দেশকে অস্থিতিশীল করতে  চেয়েছিলো’
নবাবগঞ্জ (দোহার) প্রতিনিধি

৭১-এর পরাজিত শক্তি জঙ্গিবাদের নামে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চেয়েছিলো। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ নির্মূল হয়েছে। তাই বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে একটি সম্ভাবনাময় দেশ হিসেবে গড়ে উঠছে।

রোববার বিকালে ঢাকার নবাবগঞ্জ থানার নতুন ভবনের উদ্বোধন শেষে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সন্ত্রাস, জঙ্গি ও মাদকবিরোধী সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি এসব কথা বলেন। এ সময় দোহার সার্কেল এএসপির কার্যালয়ের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ সময় আরো বলেন, পুলিশ যাতে অহেতুক কাউকে হয়রানি না করে সে বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা আছে। সন্ত্রাসে মদদ ও মাদকের সাথে কোন পুলিশ জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিশেষ অতিথি প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারী খাত শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, সরকার শিল্পখাতে বিনিয়োগের নিরাপদ ব্যবস্থা করেছে। দেশের মানুষ এখন নির্বিঘ্নে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারবে। এ ছাড়া প্রশাসনের সাথে সহযোগিতা করলে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের অবসান হলে দেশ আরো এগিয়ে যাবে। দোহার নবাবগঞ্জের উন্নয়নের বিষযেও তিনি জোর দেন।

পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, বঙ্গবন্ধুর সময় দেশে কোন জঙ্গি ছিলো না। পরবর্তীতে যারা দেশ শাসন করেছে তারাই সন্ত্রাস ও জঙ্গি সৃষ্টি করেছেন। জঙ্গি নির্মূলে পুলিশ বাহিনী প্রাণ দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পুলিশ আজ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সন্ত্রাস জঙ্গি দমনে কাজ করছে। এ জন্য প্রয়োজন সকলের সহযোগিতা।

এ সময় নবাবগঞ্জ উপজেলার প্রায় শতাধিক মাদক ব্যবসায়ী স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে অঙ্গীকার করেন। স্বরাষ্টমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান ও প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারী খাত শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের পক্ষে তাদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে পুলিশ সদস্যরা। এসময় তাদের পূর্ণবাসনের জন্য নারী পুরুষ মিলে ১৫ জনকে সেলাই মেশিন ও ভ্যান গাড়ি দেয়া হয়।

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান শাফিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান, ঢাকা জেলা প্রশাসক আবু সালেহ মো. ফেরদৌস খান, সাবেক এমপি খন্দকার হারুনুর রশিদ, ঢাকা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান, কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি আক্কাস আলী মোল্লা, দোহার উপজেলা চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, নবাবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন আহমেদ ঝিলু, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল বাতেন মিয়া, নির্মল রঞ্জন গুহ, পনিরুজ্জামান তরুণ, আবুল হোসেন, মোয়াজ্জেম হোসেন, মিজানুর রহমান কিসমত, মো. জামাল উদ্দিন, আব্দুল জব্বার, আলী আহসান খোকন শিকদার, মো. জালাল উদ্দিন, আনার কলি পুতুল, নবাবগঞ্জ থানার ওসি মোস্তফা কামাল, দোহার থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেনসহ আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত