ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ১৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:৪২

প্রিন্ট

র‌্যাবের সঙ্গে ‘গোলাগুলিতে’ চাপাতি তুহিনসহ নিহত ২

র‌্যাবের সঙ্গে ‘গোলাগুলিতে’ নিহত ২
ফাইল ছবি
জার্নাল ডেস্ক

গাজীপুরের শ্রীপুর ও নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগ এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পারভেজ ও ‘চাপাতি’ তুহিন নামে দুই সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। মঙ্গগলবার দিবাগত রাত ২টা ৩০ মিনিট থেকে বুধবার ভোর ৪টা পর্যন্ত এসব ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। র‌্যাবের দাবি, শ্রীপুরের পারভেজ ডাকাত দলের সদস্য ও ১০টি মামলার আসামি। এছাড়া চাপাতি তুহিন নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগ এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী ও হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামি।

বাংলাদেশ জার্নাল এর প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

গাজীপুর: গাজীপুরের শ্রীপুরে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাসুদ পারভেজ নামে একজন নিহত হয়েছেন, যিনি ডাকাত দলের সদস্য ও ১০টি মামলার আসামি বলে ভাষ্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটির।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার সাতখামাইর এলাকায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, ছয়টি শটগান, একটি ওয়ান শুটারগান, ১৩টি কার্তুজ ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে শ্রীপুর থানা কমপ্লেক্সে রাখা হয়েছে।

নিহত মাসুদ শ্রীপুর উপজেলার বরমী গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে।

র‌্যাবের সহকারী পুলিশ সুপার কামরুজ্জামান জানান, গভীর রাতে সাতখামাইর এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতি নেওয়ার খবর পেয়ে র‌্যাবের টহল দল সেখানে অভিযান চালায়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতরা গুলি ছোঁড়ে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছুঁড়লে ঘটনাস্থলেই মাসুদ গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। পালিয়ে যায় তার অপর সহযোগীরা।

গোলাগুলিতে র‌্যাবের কনস্টেবল সোহরাব আহত হন। পরে ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ছয়টি শটগান, একটি ওয়ান শুটার, ১৩টি কার্তুজ, দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

নিহত পারভেজের বিরুদ্ধে সাতটি ডাকাতিসহ বিভিন্ন থানায় ১৩টি মামলা রয়েছে বলে জানান র‌্যাব কর্মকর্তা কামরুজ্জামান।

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ শহরের দেওভোগ এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী ও হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামি তুহিন ওরফে চাপাতি তুহিন র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে। বুধবার ভোর চারটায় নগরীর সৈয়দপুর এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

নিহত তুহিন দেওভোগ শান্তিনগর এলাকার কাওসার হোসেনের ছেলে।

কালিবাজারের ক্যাম্প ইনচার্জ এএসপি মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবার রাতে কুমিল্লার দেবিদ্বার থেকে সন্ত্রাসী ‘চাপাতি’ তুহিনকে আটক করেন র‌্যাব সদস্যরা। তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বুধবার গভীর রাতে নগরীর সৈয়দপুর এলাকায় অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার করতে যায় র‌্যাব। এসময় আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা তুহিনের সহযোগীরা তাকে ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্য র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। র‌্যাবও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে। এসময় গুলিবিদ্ধ হয় তুহিন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

র‌্যাব জানায়, ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত তুহিনের বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজিসহ চারটি মামলা রয়েছে। এর আগে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হাসান বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড ছিল চাপাতি তুহিন। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত