ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : ১৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৪:২৫

প্রিন্ট

ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মারধর-সম্পত্তি লিখে নেয়ার অভিযোগ

ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মারধর-সম্পত্তি লিখে নেয়ার অভিযোগ
নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চরএলাহী ইউনিয়নে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে সপরিবারে নিজের বেয়াইকে ডেকে এনে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় জোরপূর্বক বিয়াইয়ের ঘরবাড়িসহ ২০ শতাংশ সম্পত্তি স্ট্যাম্পের মাধ্যমে লিখে নেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় চরএলাহী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সহযোগিতায় রোববার দিনভর তাদের আটক রেখে ইউপি সদস্য এসব ঘটিয়েছে।

মারধরের শিকার গোলাম কিবরিয়া, তার স্ত্রী পেয়ারা খাতুন ও ছেলে মো. জুয়েল নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ভুক্তভোগী গোলাম কিবরিয়া জানান, গত এক থেকে দেড় মাস আগে তার ছোট ছেলের সঙ্গে স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বারের মেয়ের বিয়ে হয়। রোববার ওই মেম্বার ফোনে তাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে বলে তার ছেলে নাকি আরো একটা বিয়ে করেছে। কিবরিয়া এ কথার প্রতিবাদ করলে তাকে বেদম মারধর করেন ওই মেম্বার ও তার ছেলে। এক পর্যায়ে কিবরিয়ার বড় ছেলে এবং তার স্ত্রীকেও মারধর করে বাড়িতে আটক করে রাখে তারা।

পরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাব উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গণিকে ডেকে এনে ফের মারধর করা হয়। এসময় এবং জোরপূর্বক স্ট্যাম্পে কিবরিয়ার বসত-ভিটিসহ ২০ শতাংশ জমি আম মোক্তারের মাধ্যমে লিখে নেন ওই মেম্বার। ভুক্তভোগী পরিবার চিকিৎসা নেয়ার চেষ্টা করলে তাদেরকে স্থানীয় বাদামতলী এলাকায় নিয়ে আটকে রাখা হয়। খবর পেয়ে গণমাধ্যম কর্মীরা মেম্বার ও আওয়ামী লীগ নেতাদের ফোন দিলে পরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ভুক্তভোগীকে থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত