ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০৪ অক্টোবর ২০১৯, ২০:৪৫

প্রিন্ট

চট্টগ্রামে ঋণ শোধ করতে সন্তান বিক্রি

চট্টগ্রামে ঋণ শোধ করতে সন্তান বিক্রি
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

এ যেন সিনেমার কাহিনীকেও হার মানায়। মাত্র ৫০ হাজার টাকার জন্য নিজের সন্তানকে বিক্রি করে দিয়েছেন এক বাবা। স্থানীয় এক এনজিও থেকে ৫০ হাজার ঋণ নিয়েছিলেন শ্রমিক এহেছানুল্লাহ (৪৫) নামের ওই ব্যক্তি। এরপর প্রতি সপ্তাহে ১২ শ টাকা করে কিস্তি শোধ করতে গিয়ে তিনি আর কুলিয়ে উঠতে পারছিলেন না। এ নিয়ে সংসারেও চলছিলো অশান্তি।

সর্বশেষ এহেছানুল্লাহ ৫২ হাজার টাকার বিনিময়ে সন্তানহীন এক নারীর কাছে কৌশলে তার নিজের ছেলেকে বিক্রি করে দেন। এরপর ছেলে হারিয়ে যাওয়ার নাটক সাজিয়ে ছলচাতুরির আশ্রয় নেন। এভাবে প্রায় তিনমাস পেরিয়ে যাওয়ার পর সর্বশেষ পুলিশের সহোযোগিতায় তার ছেলে ফিরে পায় মাকে।

এ বিষয়ে রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্লাহ জানান, কুমিল্লায় এহেছানুল্লাহর স্ত্রী-সন্তান থাকলেও গত আট বছর আগে তথ্য গোপন করে কক্সবাজারের মহেশখালী থেকে আরো একটি বিয়ে করেন তিনি। ছোট স্ত্রী নাছিমা আকতার কক্সবাজারের মহেশখালীর শাপলাপুর ইউনিয়নের মৃত বদিউল আলমের কন্যা। তার এ সংসারে আছে রাব্বি ও এক কন্যা সন্তান।

এর আগে বেশ কয়েক বছর ধরে এহেছানুল্লাহ রাউজানের কচুখাইন গ্রামের জাকির হোসেনের বাড়িতে কামলা হিসেবে কাজ করতেন। সেই পরিচয়ের সূত্র ধরে জাকির হোসেন তার বউয়ের বড় বোন বাছু আকতারের জন্য একটি ছেলে সন্তান কেনার আগ্রহ দেখালে টাকার লোভে পড়েন এহেছানুল্লাহ। তিন মাস আগে চট্টগ্রাম শহরে বেড়ানোর কথা বলে কৌশলে ছেলেকে বিক্রি করে দেন তিনি।

এদিকে ছেলেহারা মা নাছিমা তিনমাসেও ছেলেকে ফিরে না পেয়ে রাউজানের কচুখাইন গ্রামের জাকিরের সঙ্গে যোগাযোগের শুরু করেন। ঘটনাক্রমে নাছিমা জানতে পারেন তার স্বামী বাছু আকতার নামে এক মহিলার কাছে একটি শিশুকে বিক্রি করেছেন।

এরপর ছেলেকে ফিরে পেতে নাছিমা মহেশখালীর জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সেখানকার থানায় ছুটে যান। স্থানীয়রা কৌশলে এহেছানুল্লাহকে থানায় ফোনে ডেকে আনে। পরে রাউজান পুলিশের একটি টিম ছেলেটিকে উদ্ধারে প্রথমে কচুখাইন গ্রামে যায়। সেখান থেকে কচুখাইনে এহেছানুল্লাহর সেই বাড়ির মালিক জাকির হোসেনকে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মঙ্গলবার সকালে নগরের দিদার মার্কেট এলাকার বাছু আকতারের ঘর থেকে রাব্বিকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এ সময় পুলিশের কাছ থেকে পুরো ঘটনা জেনে রাব্বির নতুন মা বাছু আকতার নিজে রাউজান থানায় উপস্থিত হয়ে বুধবার (২ অক্টোবর) রাব্বিকে তার মা নাছিমার কোলে তুলে দেন। সম্প্রতি রাব্বির জন্য কেনা নতুন কাপড়চোপড়-খেলনাসহ সবকিছু তার মায়ের হাতে তুলে দেন বাছু আকতার। এমনকি ছেলের বিনিময়ে দেয়া ৫২ হাজার টাকার দাবিও ছেড়ে দিয়েছেন তিনি।

এদিকে কোনো পক্ষ থেকে ঋণগ্রস্ত এহেছানুল্লাহর বিরুদ্ধে অভিযোগ না দেয়ায় তাকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত