ঢাকা, বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২১ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:৫০

প্রিন্ট

রায়পুরে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ আহত ৪

রায়পুরে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ আহত ৪
রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পতিপক্ষের হামলায় নারীসহ ৪ জন আহত হয়েছে। পতিপক্ষরা বসতবাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

আহতদেরকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা রায়পুর সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। হাজীমারা ফাঁড়ি পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতরা হলেন, রুহুল আমিন (২৮) তার স্ত্রী নাছিমা (২৪), পিতা আলী আকবর (৫৫), মেয়ে মাফিয়া (২৭)। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার দুপুরে উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড চরলক্ষ্মী গ্রামের মাঝি বাড়িতে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, একই গ্রামের রুহুল আমিন ও মানিক মাঝিদের মধ্যে ৩০ শতাংশ জমি নিয়ে পূর্ব থেকে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে উভয়পক্ষ জমির মালিকানা দাবি করে আদালতে একাধিক মামলাও বিচারাধীন। রোববার দুপুরে রুহুল আমিন তাদের বসতঘরের বারান্দার কাজ করতে গেলে পতিপক্ষ মানিক মাঝি, তার ছেলে আমির মাঝি, খায়রুল বাসারসহ ১০/১২ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাদেরকে পিটিয়ে, কুপিয়ে, বসতবাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। এতে একই পরিবারে ৪ জন মারাত্মক আহত হয়।

আহতদের মাথায়, হাতে-পায়ে জখমের চিহ্ন রয়েছে। তাদের বসতঘর থেকে ৪ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৫০ হাজার টাকা নেয়ার দাবি করেছেন রুহুল আমিনের স্ত্রী নাছিমা বেগম। নির্মাণাধীন বসতঘর ভাঙ্গচুর করে ৪০ হাজার টাকা ক্ষতি সাধনসহ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয় বলে ভুক্তভোগীদের দাবি।

প্রতিপক্ষ মানিক মাঝির সাথে যোগাযোগ করলে তারা হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, তারা আমাদের জমিতে বসতঘর নির্মাণ করতে গেলে আমরা বাধা দেই। তারা আমাদের ওপরে হামলা করে এতে আমাদের কয়েকজন আহত হয়েছে। আমরা প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচার দাবি করছি।

ইউপি চেয়ারম্যান মিন্টু ফরাজি ও ইউপি আওয়ামী লীগের সম্পাদক তাজুল ইসলাম মাস্টার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দ্রা জানাই। এ ধরনের ঘটনা কারো কাম্য নয়। অভিযোগ পেলে স্থানীয়ভাবে সমাধান করা হবে।

যোগাযোগ করা হলে হাজীমারা ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভোলায় পুলিশের গুলিতে নিহতদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ

ভোলায় নবীপ্রেমিক তৌহিদী জনতার ওপর পুলিশি হামলা ও ৪ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে এত্তেফাকুল উম্মাহ্ পরিষদ নামে একটি সংগঠন পৌর শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে। প্রায় ২ হাজার জনতা মিছিলটি নিয়ে শহরের বাসস্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে গিয়ে শেষ হয়।

সেখানে আলোচনা শেষে বক্তারা ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করে নিহতদের ন্যায়বিচার করতে সরকারের কাছে দাবি জানান। ভোলার এ ঘটনায় রায়পুরবাসী তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত