ঢাকা, সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:০৭

প্রিন্ট

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলা ও ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে প্রস্তুতি নিবেন যেভাবে

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলা ও ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে প্রস্তুতি নিবেন যেভাবে
অনলাইন ডেস্ক

অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উপকূলীয় জেলাগুলোতে আঘাত হানতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স কো-অর্ডিনেশন সেন্টারের (এনডিআরসিসি) রাত ১১টার প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড়টি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ-খুলনা উপকূল (সুন্দরবনের কাছ দিয়ে) অতিক্রম করতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলা ও ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে কীভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে তাই এখন সবার ভাবনার বিষয়। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর শুক্রবার রাতে এ বিষয়ে দিক নির্দেশনা দিয়েছে। ফেসবুক পেজে জানানো হয়ে ঘূর্ণিঝড়ের আগে, ঘূর্ণিঝড়ের সময় ও ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময় কী করতে হবে।

ঘূর্ণিঝড়ের আগে

যথাসম্ভব নিজেকে শান্ত রাখার চেষ্টা করতে হবে। বিশ্বাসযোগ্য ও সংশ্লিষ্ট মাধ্যম ছাড়া অন্য কোনো গুজবে কান দেওয়া যাবে না। সবসময় জরুরি প্রাথমিক চিকিৎসা সামগ্রী কাছে রাখতে হবে। ঝড়ে গাছ পড়ে গিয়ে বিদ্যুৎ বিভ্রাট হতে পারে। তাই মোবাইল ফোন আগেই সম্পূর্ণ চার্জ দিয়ে রাখতে হবে। বিপদের মুহূর্তে মোবাইল প্রয়োজনীয়। পোষ্যদেরও বাড়ির ভিতর নিরাপদ স্থানে রাখতে হবে। সরকারি বার্তা অনুসরণ করতে হবে।

ঘূর্ণিঝড়ের সময়

ঝড় শুরু হলে প্রথমেই বাড়ির ভিতরের বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করতে হবে, তা নাহলে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। সম্ভব হলে ফোটানো বা ক্লোরিন দেওয়া পানি পান করা। ঝড়ের সময় রাস্তায় থাকলে যত দ্রুত সম্ভব কোনো সুরক্ষিত স্থানে আশ্রয় নিতে হবে। গাছ বা বিদ্যুতের খুঁটির নিচে দাঁড়ানো যাবে না। পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে বেতার বার্তা শোনা প্রয়োজন।

ঘূর্ণিঝড়ের পর

ঝড়ে ক্ষতি হয়েছে এমন কোনো বাড়িতে আশ্রয় নেওয়া যাবে না। ছিঁড়ে পড়ে থাকা বিদ্যুতের তারে হাত দেওয়া নিষেধ।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত