ঢাকা, সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ১৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ১০:০০

প্রিন্ট

‘পলিথিন, প্লাস্টিকের ব্যবহার আর না’

‘পলিথিন, প্লাস্টিকের ব্যবহার আর না’
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

"পলিথিন, প্লাস্টিকের ব্যবহার আর না, যত্রতত্র আর্বজনা ফেলবো না"- এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ইসবেলা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, মাননীয় পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার সিরাজগঞ্জ শহরে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি, আলোচনা সভা ও ইসাবেলা আর্ট স্কুলের শুভ উদ্বোধন করেছেন।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) বিকেলে সিরাজগঞ্জ গৌরি আরবান স্কুল থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়কে বর্নাঢ্য র‌্যালি শেষে সন্ধ্যায় শহীদ এম মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ইসাবেলা আর্ট স্কুলের উদ্বোধন করে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব ও ইসাবেলা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান কবির আনোয়ার।

এসময় তিনি পরিত্যক্ত পলিথিন ও প্লাস্টিক সম্পর্কে প্রানী, জীব বৈচিত্র্যের প্রাকৃতিক সম্পদ ও নদ-নদী, সামুদ্রিক সম্পদ বিনষ্টের কারণ উল্লেখ করে বলেন, পলিথিন ও প্লাস্টিক ৫০ বছরেও নষ্ট হয়না তাই আর তা ব্যবহার করবো না। পলিথিন, প্লাস্টিক বোতলের ব্যবহার মানব দেহের কিডনি নষ্ট ও ক্যান্সার রোগের প্রধান কারন।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ আব্দুর মুক্তা সিরাজী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, প্রানী, জীব বৈচিত্র্য ও প্রাকৃতিক বিশেষজ্ঞ ডঃ আনিসুর রহমান খান, অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ফিরোজ মাহমুদ, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী ইফতেখার উদ্দীন শামীম, সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম, সাব ডিভিশন ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিকুল ইসলাম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার গাজী শফিকুল ইসলাম শফি, জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েল, নদী সুরক্ষার সামাজিক সংগঠন নোঙর এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সোহাগ লুৎফুল কবির প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন পরিবেশবাদী, মানবতার ফেরিওয়ালারা খ্যাত মামুন বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ইসাবেলা ফাউন্ডেশনের একটি টিম এবং সঞ্চালনায় ছিলেন, দৈনিক করতোয়া পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার বিশিষ্ট সাংবাদিক হেলাল আহম্মেদ।

অনুষ্ঠানে গৌরিআরবান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় পাঁচ শতাধিক ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করে। জেলার মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অধিকারীকে ইসাবেলা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে একটি ল্যাপটপ উপহার দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসবি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত