ঢাকা, রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০, ৬ মাঘ ১৪২৭ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৩৭

প্রিন্ট

স্ট্যামফোর্ড শিক্ষার্থী রুম্পা হত্যায় চাঞ্চল্যকর তথ্য

স্ট্যামফোর্ড শিক্ষার্থী রুম্পা হত্যায় চাঞ্চল্যকর তথ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী সার্কুলার রোড থেকে উদ্ধার হওয়া মরদেহটির পরিচয় পাওয়া গেছে। নিহত ওই তরুণীর নাম রুবাইয়াত শারমিন রুম্পা (২১)।

তিনি বেসরকারি স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ৬৯ ব্যাচের শিক্ষার্থী। রুম্পা শান্তিবাগে পরিবারের সঙ্গে থাকতেন। তার বাবা হবিগঞ্জের পুলিশের পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত আছেন।

ময়নাতদন্তের পর চিকিৎসক প্রাথমিকভাবে জানিয়েছেন, ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে তরুণীকে। এদিকে এ ঘটনায় কে বা কারা জড়িত থাকতে পারে সে ব্যাপারে পরিবারের কোনো ধারণা নেই বলে জানিয়েছেন নিহত রুম্পার চাচা।

রুম্পার মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে ঢামেক ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ জানান, প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে ওপর থেকে পড়ে মৃত্যু হয়েছে ওই তরুণীর। ময়নাতদন্তে তাকে ধর্ষণের আলামত মিলেছে। বিষয়টি আরও নিশ্চিত হওয়ার জন্য মৃতদেহ থেকে হাই ভেজাইনাল সোয়াব, ভিসেরা, রক্ত সংগ্রহ করে পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে। সেই রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত এই বিষয়ে নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

স্থানীয় এক বাসিন্দাসহ উপস্থিত কয়েকজন জানান, সিদ্ধেশ্বরীর সার্কুলার রোডে উপুর হয়ে মেয়েটিকে পড়ে থাকতে দেখেন তারা। বহুতল ভবন থেকে নিচে পড়লেও নিহতের নাক-মুখ থেকে সামান্য রক্ত নির্গত হয়। শরীরও ছিল ঠান্ডা। পলিথিন ব্যাগে নিহতের স্যান্ডেল পড়েছিল লাশের পাশেই।

সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় তারা ধারণা করছেন, মেয়েটিকে বুধবার দুপুরের দিকে হত্যা করে লাশ ফেলা হয় রাতে। শরীর হীম হওয়ার কারণে বহুতল ভবন থেকে পড়লেও রক্ত বের হয়নি।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, নিহত রুম্পার বাবা রোকন উদ্দিন হবিগঞ্জ সদরে পুলিশ পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত। গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলায় হলেও রাজধানীর শান্তিবাগে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে থাকতেন রুম্পা।

বাংলাদেশ জার্নাল/কেআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত