ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮:৩৬

প্রিন্ট

যশোরে যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা

যশোরে যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা
যশোর প্রতিনিধি

যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের কোন্দলে জানি (২৬) নামে এক যুবক খুন হয়েছেন। সোমবার গভীর রাতে নরেন্দ্রপুর গ্রামের মোল্লাপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ এ ঘটনায় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জিএম সবুজ হাসানসহ দুইজনকে আটক করেছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি শাহিন হাসানের মোটরসাইকেল উদ্ধার হয়েছে।

নিহত জনি (২৮) মণিরামপুর উপজেলার ঢাকুরিয়া ইউনিয়নের তারুয়াপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে। যশোর সদর উপজেলার আবাদ কচুয়া গ্রামের শ্বশুর আতিয়ার রহমানের বাড়িতে থাকতেন তিনি।

এই ঘটনায় ২৬ জনের নামে কোতয়ালি থানায় একটি মামলা হয়েছে বলে কোতোয়ালি থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন।

ওসি মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান জানান, নরেন্দ্রপুরের মোল্লাপাড়ায় সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে দুই দল যুবকের কোন্দলে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুন হয় জানি। মাটি কেনা নিয়ে দুই পক্ষের কোন্দলে এ ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় কয়েকজন আটক করার সংবাদ স্থানীয় বাবে জানতে পারলেও পুলিশ আটককৃতদের নাম পরিয়চয় জানায়নি।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বাবুল আক্তার ও সুজিত বিশ্বাস জানান, ছাত্রলীগ নেতা জিএম সবুজ হাসান ও শাহিন আলম মাটি কেনাবেচার ব্যবসা করেন। তারা বিভিন্ন গ্রাম থেকে মাটি কিনে ইটভাটাসহ বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করেন। সম্প্রতি নরেন্দ্রপুরের হাসিবের জমির মাটি কিনতে চান দুইজনই। এনিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হলে সোমবার সন্ধ্যার পর নরেন্দ্রপুর মাস্টারপাড়ায় দুই পক্ষ সমঝোতা বৈঠকে বসে।

সেখানে শাহিন মোটরসাইকেল, ইজিবাইক ও ট্রেকারে করে ২০/২২ জন নিয়ে আসে। বৈঠকে সবুজের পক্ষে ছিল জনি। বৈঠক চলাকালে শাহিনের পক্ষের কয়েকজন জনিকে ডেকে পাশে নিয়ে বুকে ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এসময় গ্রামবাসী ধাওয়া করলে শাহিন ও তার পক্ষের লোকজন পালিয়ে যায়। তবে শাহিনের একটি পায়ে সমস্যা থাকায় সে তাৎক্ষণিক তার মোটরসাইকেল নিতে না পেরে অন্য বাহনে পালায়।

ঘটনাস্থল থেকে তার মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। রাত ৩টার দিকে মরদেহ যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে মর্গে নেয় পুলিশ। মঙ্গলবার লাশের ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে নরেন্দ্রপুর গ্রামের গোলাম মোস্তফা জানান, রাতে পুলিশ তার ছেলে রাসেল ও সবুজ হাসানকে তাদের বাড়ি থেকে নিয়ে গেছে। তবে পুলিশ আটক কারোর নাম জানায়নি।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত