ঢাকা, বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯ আপডেট : ৬ মিনিট আগে
শিরোনাম

দিনাজপুর পৌর ভবনের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ভোগান্তি

  দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশ : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৮:৫০  
আপডেট :
 ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৯:০৬

দিনাজপুর পৌর ভবনের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ভোগান্তি
দিনাজপুর পৌর ভবন। ছবি: প্রতিনিধি
দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুর পৌরসভার প্রধান কার্যালয়ে বিদ্যুতের সংযোগ ১৯ কোটি টাকা বকেয়া থাকায় বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই (নেস্কো)। গত মঙ্গলবার থেকে বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন থাকায় অন্ধকারের মধ্যে আছে পৌরসভার প্রধান কার্যালয়। এতে পৌরসভার সেবা নিতে আসা লোকজন ভোগান্তিতে পড়েছেন।

প্রায় ১০ বছর ধরে দিনাজপুর পৌর কার্যালয়ের ভবনে ব্যবহৃত বিদ্যুতের বিল বকেয়া থাকায় লাইন বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে বলে নেস্কোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর ২টা থেকে বিদ্যুতের লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেয় দিনাজপুর নেস্কো বিভাগ ২। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্নতার বিষয়টি বুধবার জানাজানি হয়।

পৌরসভার সেবা নিতে আসা মোফাজ্জল হোসেন বলেন, জরুরি ভিত্তিতে তার মেয়ের জন্ম-নিবন্ধন কার্ডের প্রয়োজন পড়ে। সকাল থেকে এসে বেশ কয়েকবার ঘুরছি কিন্তু কেউ কোন কথা বলতে পারছেন না। সবাই বলেন, বিদ্যুৎ আসলেই সেবা দেয়া হবে কিন্তু বিদ্যুৎ আসার কোন আলামত দেখতে পাচ্ছি না ।

একই কথা বলে নাসিমা বেগম, তিনিও এসেছেন তার ছেলের জন্ম-নিবন্ধনের কার্ড নিতে, কিন্তু কোনভাবেই সে এই সেবাটুকু পাচ্ছে না। বিদ্যুত নাই সেবা নাই, ফলে ফেরত যেতে হচ্ছে।

দিনাজপুর পৌরসভার এক প্রশাসনিক কর্মকর্তা বলেন, আমরা কোন কথাই বলতে পারব না। বিদ্যুৎ না থাকলে কোন সেবা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে না। আজকে মেয়র ছুটিতে আছেন। প্যানেল মেয়র দায়িত্ব পালন করছেন। সকাল থেকেই বিদ্যুৎ না থাকায় আমরা অন্ধকারে বসে আছি।

দিনাজপুর পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মিনারুল ইসলাম খান বলেন, দীর্ঘদিনের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকার কারণে গত মঙ্গলবার বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন এসে দিনাজপুর পৌরসভার প্রধান কার্যালয়ের লাইন বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। তখন থেকেই প্রশাসনিক সব কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে, সেবাও দেয়া যাচ্ছে না।

দিনাজপুর পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, আমরা একাধিকবার মাসিক সভায় পৌর মেয়রকে বিদ্যুৎ বিলের বকেয়া পরিশোধ করার জন্য বিভিন্ন রকমের রেজুলেশন করা হলেও কিন্তু তিনি তালবাহানা করে বিদ্যুৎ বিল দেয়নি। ফলে গতকাল বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন এসে দিনাজপুর পৌরসভার প্রধান কার্যালয়ের বিদ্যুতের লাইন বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে। এতে করে পৌরসভাসহ প্রশাসনিক সব কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম এই প্রতিবেদকের সাথে মোবাইল ফোনে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার সংবাদ নিশ্চিত করে বলেন, কয়েক কোটি টাকা বিদ্যুতের বিল বাকি থাকলেও দিনাজপুর পৌরসভা বিদ্যুৎ বিভাগ নেষ্কো -২ এর নিকট প্রায় একশত কোটি টাকা পাওনা রয়েছে। আমরা একাধিকবার তাদেরকে পৌরসভার বিদ্যুৎ লাইনের খুঁটির ভাড়া প্রদানের জন্য নির্দেশনা বা চিঠি চালাচালি করলেও তারা সাড়া দিচ্ছে না। বিষয়টি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিবও তাদের বরাবর কয়েকটি চিঠি প্রদান করেছে। তারপরও তারা আমাদের টাকা পরিশোধ না করায় আমরাও বিদ্যুতের বিল পরিশোধ করতে পারিনি।

তিনি আরও বলেন, দিনাজপুর পৌরসভা কোভিড -১৯ টিকাসহ বিভিন্ন টিকা রয়েছে। জেনারেটরের মাধ্যমে বিদ্যুৎ লাইন সচল রাখার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে ,যাতে করে ভ্যাকসিনসহ সাময়িক কাজগুলো চালিয়ে যাওয়া যায় ।

দিনাজপুর বিদ্যুৎ বিভাগ নির্বাহী প্রকৌশলী বজলুর রহমান মোবাইল ফোনে বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন হওয়ার সংবাদ নিশ্চিত করে বলেন, প্রায় ২৩ কোটি টাকা দিনাজপুর পৌরসভার বকেয়া রয়েছে। আমাদের কেন্দ্রীয় অফিসের নির্দেশনায় দিনাজপুর পৌরসভার বিদ্যুতের লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। দিনাজপুর পৌরসভার পক্ষ থেকে আমাদের সাথে এখন পর্যন্ত বিদ্যুৎ লাইন পুনরায় সংযোগ দেয়ার বিষয়ে কোন কথা হয়নি ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমপি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত