ঢাকা, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬ অাপডেট : ১০ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৮

প্রিন্ট

পঞ্চগড়ে শফীর সম্মেলন, শঙ্কায় আহমদিয়ারা

পঞ্চগড়ে শফীর সম্মেলন, শঙ্কায় আহমদিয়ারা
পঞ্চগড় প্রতিনিধি

১৬ এপ্রিল পঞ্চগড় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম স্টেডিয়ামে সম্মিলিত খতমে নবুওয়ত সংরক্ষণ পরিষদের আয়োজনে খতমে নবুওয়ত সম্মেলনে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর যোগ দেওয়াকে কেন্দ্র করে শঙ্কা প্রকাশ করেছে আহমদিয়া সম্প্রদায় (কাদিয়ানী) ।

সোমবার দুপুরে পঞ্চগড় আহমদনগরে আহমদিয়া মুসলিম জামাতের মসজিদ কমপ্লেক্সে এক সংবাদ সম্মেলন করে এই শঙ্কা প্রকাশ করেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আহমদনগর আহমদিয়া মসজিদের ইমাম আব্দুল মতিন।

লিখিত বক্তব্যে তারা জানান, গত ১২ ফেব্রুয়ারি খতমে নুবওয়ত সংরক্ষণ পরিষদের ব্যানারে একটি সংগঠন আহমদিয়াদের সালানা জলসা পন্ড করার উদ্দেশ্যে আহমদিয়া সদস্যদের বাড়িতে সুপরিকল্পিতভাবে আক্রমণ করে ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে।

এ সময় তাদের আক্রমণে আহমদিয়া সম্প্রদায়ের ২২ জন সদস্য আহত হয়। এ আক্রমণের পর অনেক মহিলা ও শিশুরা প্রচন্ড ট্রমায় ভুগছে। ওই সময় আল্লামা সফী তাদের সমর্থন দিয়ে বিবৃতি দিয়েছিলেন।

তাদের আক্রমণের পর আমরা আমাদের জলসা আর করতে পারিনি। কিন্তু তারা পঞ্চগড়ে সম্মেলন করছে ঠিকই। আবার সেই সস্মেলনে আল্লামা সফীও যোগ দিবেন বলেও পোস্টার ছাপা হয়েছে।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করবেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত, সার্বিক তত্বাবধায়নে আছেন পৌর মেয়র ও পৌর বিএনপির সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম।

তারা প্রশাসনের কাছে ২০ হাজার মানুষ সমাগমের কথা বললেও ভেতরে ভেতরে লক্ষাধিক মানুষের সমাগম করার পরিকল্পনায় কাজ করে যাচ্ছেন বলে আমরা জেনেছি। খতমে নবুওয়তের মহাসম্মেলনে আমাদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার ঘৃণা বিদ্বেষ ছড়ানো ও আক্রমণের উষ্কানি দেয়া হবে বলে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশস্ত করা হয়েছে।

কিন্তু এ সকল তাদের ইতিহাস এটাই বলে যে, এরা কখনো তাদের কথায় ঠিক থাকেনা। এক পর্যায়ে তারা প্রশাসনকে বেকায়দায় ফেলে আক্রমণাত্বক ভূমিকা গ্রহণ করে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে আহমদিয়া মুসলিম জামাতের ন্যাশনাল আমির মোবাশ্বের উর রহমান ও পঞ্চগড় আহমদনগর আহমদিয়া জামাতের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ তাহের যুগলসহ আহমদিয়া সম্প্রদায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আহমদিয়া মুসলিম জামাতের ন্যাশনাল আমির মোবাশ্বের উর রহমান জানান, আমরা শঙ্কিত এ কারণে যে, তারা সরাসরি ঘোষণা না দিলেও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমসহ অন্য কোন মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে আক্রমন করতে পারে।

তাই আমরা আহমদিয়াদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে তাদের বিষয়ে আজও সজাগ থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। তবে তারা যদি শান্তিপূর্ণভাবে তাদের সম্মেলন শেষ করে আমরা তাদের স্যালুট জানাবো।

পঞ্চগড় পুলিশ সুপার গিয়াসউদ্দিন আহমদ বলেন, আমরা সকল পক্ষের সঙ্গে কথা বলে শর্ত সাপেক্ষে অনুমতি দিয়েছি। সম্মেলনকে ঘিরে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

এছাড়া পুলিশ, র‌্যাব বিজিবি টহল থাকবে। আহমদিয়া সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে কোন উস্কানিমূলক বক্তব্য দিতে পারবেনা বলে আমরা আহমদিয়াদের আশ্বস্ত করেছি। মাঠে গোয়েন্দা সংস্থা কাজ শুরু করেছে। আশা করি শান্তিপূর্ণভাবে এই সম্মেলন শেষ হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/টিপিবি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close