ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৯ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৮ জুন ২০১৯, ১৪:৩৪

প্রিন্ট

পুলিশের মোটরসাইকেল থেকে আসামির পলায়ন

পুলিশের মোটরসাইকেল থেকে আসামির পলায়ন
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের শৈলকুপা থানা পুলিশের চলন্ত মোটরসাইকেল থেকে রহস্যজনক ভাবে এক আসামি পালিয়ে গেছে। সে উপজেলার কুলচারা গ্রামের শহীদের ছেলে মো: আকাশ।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার দুধসর ব্রিজের কাছে এ ঘটনা ঘটে। খবরের সত্যতা স্বীকার করেছেন শৈলকুপা থানার সংশ্লিষ্ট এসআই এমদাদ।

তিনি বলেছেন, বৃহস্পতিবার বিকেল পোনে ৫টার দিকে পলাতক আসামি আকাশকে স্থানীয় ভাটই বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে গত ৪ জুন শৈলকুপা থানায় দায়ের করা মোটরসাইকেল চুরি মামলার আসামি। তাকে গ্রেপ্তার করার পরে মোটরসাইকেলে করে থানায় নিয়ে যাওয়ার পথে দুধসর ব্রিজপার হওয়ার পরপরই লাফ দিয়ে পালিয়ে যায়।

এসআই এমদাদের ভাষায় চলন্ত মোটরসাইকেল থেকে যখন আসামি আকাশ লাফ দেয় তখন বিপরীত দিক থেকে একটি দ্রুতগতির বাস আসছিল। এ ঘটনার পরে সঙ্গে থাকা কনস্টেবল মনিরকে নিয়ে ঘটনাস্থলের পাশে দুধসর মাঠে খোঁজাখুজি করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।

এদিকে মামলার বাদি পক্ষ অভিযোগ করেছেন টাকার বিনিময়ে আসামি ছেড়ে দিয়েছে এসআই এমদাদ। মামলার বাদি শৈলকুপা উপজেলার ভগবাননগর গ্রামের খলিল বিশ্বাসের ছোট ছেলে নাইমুর রহমান রুকু।

তার বড় ভাই রোকনুজাজামান রোকন জানান, বিকেল পোনে ৫টার দিকে মোবাইল করে এসআই এমদাদ ভাটই বাজারে আসে। এরপর আসামি ধরার জন্য তার কাছে টাকা দাবি করা হয়। এরপর এক হাজার টাকার নোট এসআই এমদাদের হাতে তুলে দেয় রোকন। আসামি আকাশ বাজারেই ছিলেন। তাকে ধরে আনেন স্থানীয়রা।

রোকনের দেয়া তথ্য মতে, আকাশকে এসআই এমদাদ তার নিজস্ব লাল /কাল রংয়ের পালসার মোটরসাইকেলের মাঝে বসিয়ে এবং পিছনে একজন কনস্টেবলকে নিয়ে শৈলকুপা থানার দিকে চলে যায়। মাত্র কয়েক মিনিট পরে বিকেল ৫টার দিকে রোকনকে এসআই এমদাদ মোবাইল ফোনে জানায় যে, আসামি মটরসাইকেল থেকে লাফ দিয়ে পালিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে শৈলকুপা থানায় ৬ জুন যোগদান করা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলুর রহমান বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক।

শৈলকুপা সার্কেলের নবনিযুক্ত সিনিয়র এএসপি আরিফুল ইসলাম বাংলাদেশ জার্নালকে বলেছেন, ঘটনা তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/টিপিবি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত