ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৩ জুন ২০১৯, ১৫:২৮

প্রিন্ট

এক দশকেও কাটেনি তারাকান্দা সড়কের বেহাল দশা

এক দশকেও কাটেনি তারাকান্দা সড়কের বেহাল দশা
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

প্রায় এক দশকেও বেহাল দশা কাটেনি ময়মনসিংহ ধোবাউড়া কলসিন্দুর সড়কের। তারাকান্দা থেকে ধোবাউড়া উপজেলার কলসিন্দুর পর্যন্ত ৪৫ কিলোমিটার সড়কের বেশিরভাগ খানাখন্দে ভরা।

সড়কের এমন বেহাল দশার কারণে ৩ উপজেলার মানুষের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। তারাকান্দা ও ধোবাউড়া উপজেলাসহ ফুলপুর উপজেলার কয়েক লাখ মানুষ এই সড়কটি ব্যবহার করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধোবাউড়া উপজেলা থেকে কলসিন্দুর পর্যন্ত সাত কিলোমিটার সড়কের পুরোটাই অকার্যকর হয়ে পড়েছে। সড়কের সিলকোট ও কার্পেটিং উঠে এর কোথাও ইট-সুরকি এবং কোথাও মাটির নীচের তলদেশ পর্যন্ত দেখা যায়। সাহাপাড়া ও দাইরপাড়ায় ডোবার মত গর্ত তৈরি হয়েছে।

সামান্য বৃষ্টি হলেই এসব গর্তে হাটু সমান পানি জমে কাদা পানিতে একাকার হয়ে যায়। প্রায়ই এসব ডোবায় উল্টে যায় পণ্যবাহী ট্রাক। স্থানীয়দের অভিযোগ ওভারলোডের বালুবাহী ট্রাক যাতায়াতের কারণেই সড়কটির এমন মরণদশা।

কলসিন্দুর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক রতন মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে বাংলাদেশ জার্নালকে জানান, সড়কের বেহাল দশার কারণে মানুষের ভোগান্তির সীমা থাকছে না।

সড়কটির উন্নয়ন ও মেরামতের জন্য ময়মনসিংহের মাসিক উন্নয়ন ও সমন্বয় কমিটির সভায় একাধিকবার উত্থাপনের পরও সমস্যার দৃশ্যমান কোন সমাধান হয়নি বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। অভিযোগ, এলজিইডি ও ঠিকাদারের গাফিলতির কারণেই ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে।

এক ঘন্টার পথ যেতে সময় লাগছে তিন ঘন্টারও বেশি। সেই সাথে বেড়েছে পরিবহনের ভাড়াও। সবচেয়ে বেশি ভোগান্তির শিকার হচ্ছে প্রসূতি মাসহ রোগীরা। অথচ এ নিয়ে কোন মাথা ব্যাথা নেই এলজিইডির স্থানীয় কর্তৃপক্ষসহ ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের। অভিযোগ উঠেছে, এই কাজে নিয়োজিত ঠিকাদার প্রভাবশালী বলে এলজিইডি কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিতে পারছে না।

এদিকে, তারাকান্দা থেকে ধোবাউড়া পর্যন্ত ৩৮ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে ২৬ কিলোমিটার সড়কের বেশিরভাগই ভাঙ্গাচোরা। এর মধ্যে বওলার সুতারপাড়, বারইপুখরিয়া, ভুষাগঞ্জ, হরিয়াগাই, টিউকান্দা ও কেন্দুয়া বাজারের অবস্থা একেবারেই বেহাল। সড়কজুড়ে ছোটবড় অসংখ্য খানাখন্দে ভরা।

বর্ষায় এসব খানখন্দে পানি জমে পরিণত হচ্ছে মরণডোবায়। সড়কের বওলার সুতারপাড় এলাকায় এমনই বেহাল যে বর্ষায় প্রতিদিনই যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক বিকল হচ্ছে, ঘটছে নানা দুর্ঘটনা। এসময় যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ থাকায় এলাকাবাসীর ভোগান্তির সীমা থাকছে না।

এলজিইডির স্থানীয় নির্বাহী প্রকৌশলী ইসমত কিবরিয়া বাংলাদেশ জার্নালকে জানিয়েছেন, কাজে গাফিলতির কারণে ইতোমধ্যে দুই ঠিকাদারের কার্যাদেশ বাতিল করা হয়েছে। সেকেন্ড রুরাল ট্রান্সপোর্ট ইমপ্রোভমেন্ট প্রজেক্ট-আরটিআইপি-২ প্রকল্পের আওতায় ময়মনসিংহের তারাকান্দা ধোবাউড়া সড়কের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংক ও সরকারের ১১ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। তারাকান্দা-ধোবাউড়া-কলসিন্দুর পর্যন্ত সড়কের উন্নয়ন কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

বাংলাদেশ জার্নাল/টিপিবি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত