ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৮:২৭

প্রিন্ট

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে সপ্তাহে ৬ দিন ক্লাস!

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে সপ্তাহে ৬ দিন ক্লাস!
ক্লাসের রুটিন দেখছেন শিক্ষার্থীরা। ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাব কিছুটা কমে আসায় সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার তোড়জোড় শুরু হয়েছে। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কবে খুলবে সে ব্যাপারে কিছু জানা না গেলেও ইতোমধ্যে সব ধরণের প্রস্তুতি শেষ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেছেন, পরিস্থিতি বিবেচনায় ধাপে ধাপে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে। করোনা পরিস্থিতি আমাদের বলে দেবে যে আমরা কি ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি অথবা শেষে নাকি মার্চে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবো।

এদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিশ্বস্ত একটি সূত্র জানিয়েছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সপ্তাহে ছয়দিন করে ক্লাস নেয়া হবে। ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসও প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়াও আগামী বছরের পরীক্ষার্থীদের জন্য সিলেবাসও কমানো হতে পারে।

সূত্রটি আরো জানিয়েছে, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ছয়দিন করে ক্লাস নেয়া হলেও বাকিদের একদিন করে ক্লাস নেয়া হবে।

দেশে মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে গত ১১ মার্চ দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করে সরকার। এরপর সেই ছুটি কয়েক দফায় বাড়ানো হয়। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এমনকি এই ছুটি আরো একদফা বাড়তে পারে বলেও গুঞ্জন রয়েছে।

এর আগে চলতি বছরের ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সে অনুযায়ী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সব প্রস্তুতি প্রায় শেষ।

সূত্র জানায়, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রত্যেক শিক্ষককে করোনার টিকা দেয়া হবে। এরপরই খুলবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। পরিকল্পনা অনুযায়ী সকল শিক্ষার্থীদের ক্লাস এবং পরীক্ষা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছেন, যখনই স্কুল-কলেজ খোলা হোক না কেন, তার কতদিন পরে এসএসসি বা এইচএসসি পরীক্ষা নিলে শিক্ষাবর্ষ নষ্ট হবে না- সে বিষয়টি মাথায় রেখে সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা কতগুলো কার্যদিবস পাব, কতগুলো ক্লাস পাব- সেই হিসাব করে আমরা এসএসসি ও এইচএসসির নতুন করে সিলেবাস প্রণয়ন করেছি। এসএসসির জন্য একটি ৬০ কর্মদিবসের সিলেবাস তৈরি করেছি এবং মাথায় রেখেছি কোন কোন বিষয়গুলো তার ওই সাবজেক্টের জন্য জানা অত্যাবশ্যক। এইচএসসির বেলায় ৮৪ কার্যদিবস আমরা ঠিক করেছি।

‘কাজেই শিক্সাপ্রতিষ্ঠান খুলতে যদি আমাদের দেরি হয়, তাহলে পরীক্ষা একটু পরে নেব, তাতে এমন কোনো মহাভারত অশুদ্ধ হবে না এবং তারপরে তাদের পরবর্তী পর্যায়ে যাওয়াটা খুব বেশি সমস্যা হবে বলে আমরা মনে করছি না’ বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

এদিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে ফোন করে বলেছেন- তোমরা সব শিক্ষককে করোনার টিকা দিয়ে নেও, যেহেতু আমরা যেকোনো সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেবো। আমার কোনো শিক্ষক যেন টিকার আওতার বাইরে না থাকেন।

কবে নাগাদ শিক্ষকদের টিকা দেয়া হবে- জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, টিকার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা এক সপ্তাহের মধ্যে টিকা নেয়া শেষ করতে পারবো বলে আশা করছি।

এর আগে ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্য সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্দেশনা জারি করেছিল মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। ওই নির্দেশনায় বলা হয়, করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থী-শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট সবার স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে হবে।

এছাড়াও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, নিরাপদ ও আনন্দময় করতে কর্তৃপক্ষকে জরুরি ভাবে ব্যবস্থা নেয়ারও তাগিদ দেয়া হয় নির্দেশনায়।

আরো পড়ুন

নিজ দায়িত্বে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার হুঁশিয়ারি

শিক্ষকদের সুখবর দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

যে সময়ে এবং যেভাবে হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত