ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ আপডেট : ১৫ ঘন্টা আগে
শিরোনাম

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় থাকছে না জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

  জবি প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১৬ মার্চ ২০২৩, ০৪:৪৯

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় থাকছে না জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি

দেশে তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের সমন্বিত ২২ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় থাকছে না জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি)। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে ৯২তম সিন্ডিকেটে। যদিও এ সিন্ডিকেট সভা কবে নাগাদ হবে তার নির্ধারিত তারিখ জানানো হয়নি।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

একাডেমি কাউন্সিলের সভায় ৬৮ জন সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৫০ জন সদস্য। উপস্থিত সদস্যেদের মধ্যে গুচ্ছের বিপক্ষে ৩৫ জন, ২ জন পক্ষে এবং বাকি ১৩ জন সদস্য গুচ্ছে থাকা না থাকার বিষয়ে কোন মতামত প্রদান করেননি।

একাডেমিক কাউন্সিলের একাধিক সদস্যের সাথে কথা বলে জানা গেছে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা গুচ্ছ থেকে বের হয়ে এসে নিজস্ব পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নিতে দাবি জানিয়ে আসছিলেন। উপাচার্য বরাবর লিখিত দাবিও জানিয়েছিলেন তারা।

এ বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আইনুল ইসলাম জানান, একাডেমিক কাউন্সিলে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যে আমরা গুচ্ছ থেকে বেরিয়ে যাব। তবে ভিসি মহোদয় বলেছেন আজকে আমাদের মতামত সিন্ডিকেটে উপস্থাপন করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। খুব দ্রুত সিন্ডিকেট মিটিং আয়োজন করা হবে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্যরা সভায় তাদের বক্তব্য দিয়েছেন। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী পরবর্তী সিন্ডিকেট সভায় আলোচনা করে গুচ্ছে থাকা না থাকার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

দেশের সাধারণ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষ থেকে সর্বপ্রথম বিবিএ ও স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা লিখিত পদ্ধতিতে নেয়া শুরু করে। সেসময় থেকে শিক্ষার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রেও নতুন পদ্ধতি অবলম্বন করে কর্তৃপক্ষ।

নির্ধারিত শর্তসাপেক্ষে প্রথম ধাপের প্রাথমিক আবেদন এবং সংশ্লিষ্ট ক্রাইটেরিয়া অনুযায়ী প্রাথমিক আবেদনকারীদের মধ্য হতে যোগ্যদের চূড়ান্ত পরীক্ষার জন্য মনোনীত করা হয়। এই পদ্ধতিতে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের মধ্যে মেধার প্রতিযোগিতা লক্ষ্য করা যায় ব্যাপকভাবে।

পরবর্তী বছর অর্থাৎ ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের আরও কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় লিখিত ভর্তি পরীক্ষা প্রচলন করে। তবে পরপর দুই বছর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নিজস্ব পদ্ধতিতে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করে ব্যাপক সাড়া ফেললেও ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষ থেকে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। গুচ্ছ ভর্তি পদ্ধতি শিক্ষার্থীদের সার্বিক ভোগান্তি হ্রাস ও সুবিধার্থে আয়োজনের কথা বললেও প্রকৃত পক্ষে তার চিত্র ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। দ্বিতীয়বার গুচ্ছ ভর্তি প্রক্রিয়ায় অংশ নিয়ে ধুকেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দাবি, অতি অল্প সময়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় যতটা এগিয়ে গিয়েছিল, দুইবার গুচ্ছে যাওয়ায় অনেকটা আবার পিছিয়ে গেছে। গুচ্ছ পদ্ধতির অসংগতির ফলেই দুইবার শিক্ষার্থী সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। বারবার গণ সাক্ষাৎকার দেওয়ায় এখানে মেধার কোনো মূল্যায়ন হয়নি। যারা নাম্বার পেয়েছে তারাই এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পেরেছে। এভাবে একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির ক্ষেত্রে মেধার প্রতিযোগিতা হয় না। তাই নিজস্ব পদ্ধতিতে ফেরা দরকার।

বাংলাদেশ জার্নাল/জিকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত