ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০১ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:৫৩

প্রিন্ট

স্কুল-কলেজের স্বীকৃতি নবায়ন শুরু

স্কুল-কলেজের স্বীকৃতি নবায়ন শুরু
অনলাইন ডেস্ক

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা খোলা, শিক্ষার্থী ভর্তির অনুমতি ও হালনাগাদ স্বীকৃতি নবায়নের কার্যক্রম শুরু করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। গত ৩০ অক্টোবর ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড থেকে বিষয়টি জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

জানা গেছে, নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়সমূহে (৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত) অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা খোলা,শিক্ষার্থী ভর্তির অনুমতি এবং হালনাগাদ স্বীকৃতি নবায়নের কাজ শুরু করেছে ঢাকা বোর্ড। ৩০ অক্টোবর থেকে স্বীকৃতি নবায়নের কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানে স্বীকৃতি নবায়নের বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি নবায়ন আপটুডেট বা প্রতিবছরের হালনাগাদ থাকতে হবে। যথাসময়ে স্বীকৃতি নবায়নের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা সম্পন্ন না করলে অর্থাৎ প্রতিবছরের হালনাগাদ স্বীকৃতি না থাকলে, পরপর দু’বারের বেশি অ্যাডহক কমিটি গঠনের দৃষ্টান্ত থাকলে, বোর্ডের নিয়মনীতি ও নির্দেশাবলী লঙ্ঘন করলে, যথাসময়ে শিক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন না করলে ও পরীক্ষার্থী প্রেরণ বা পরীক্ষা পরিচালনায় অসদাচরণের প্রমাণ পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি প্রত্যাহার করা হবে।

আর হালনাগাদ স্বীকৃতি নবায়নের জন্য ৬ষ্ঠ হতে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী সংখ্যা, অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা খোলার অনুমতিপত্র, সহশিক্ষা চালুকরণের অনুমতিপত্র, বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা খোলার অনুমতিপত্র, সহশিক্ষা চালুকরণের অনুমতিপত্র, ডাবল শিফট খোলার অনুমতিপত্র, ব্রাঞ্চ খোলার অনুমতিপত্র, সর্বশেষ স্বীকৃতিপত্র বা স্বীকৃতি নবায়নপত্র, সর্বশেষ কমিটি অনুমোদনপত্র ও ট্রাস্ট বা সংস্থা পরিচালিত প্রতিষ্ঠান হলে নিবন্ধন সনদ কপি মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় শাখার সেকশন অফিসার বরাবর জমা দিতে হবে।

এছাড়া বিদেশি কারিকুলামে পরিচালিত প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ইংরেজি মাধ্যমে পরিচালিত প্রতিষ্ঠানসমূহকে অবশ্যই বিধিমোতাবেক সাময়িক নিবন্ধন করতে হবে এবং নিবন্ধন ও নিবন্ধন নবায়ন প্রতিবছর হালনাগাদ রাখতে হবে।

এদিকে অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা খুলতে প্রতিষ্ঠানগুলো কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে। নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে শর্তগুলো হলো, ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত একক শ্রেণি বা শাখায় ৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা যাবে। তবে, ৫০ এর অধিক শিক্ষার্থী হলে ৪০ জনের ২য় শাখা খোলা যাবে। ৩য় বা তারও বেশি শাখা খোলার জন্য পূর্ববর্তী শাখাগুলোকে অবশ্যই ৫০ জন শিক্ষার্থী পূরণ করতে হবে।

মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শর্তগুলো হলো, ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত একক শ্রেণি বা শাখায় ৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা যাবে। তবে, ৫০ এর অধিক শিক্ষার্থী হলে ৪০ জনের ২য় শাখা খোলা যাবে। ৩য় বা তারও বেশি শাখা খোলার জন্য পূর্ববর্তী শাখাগুলোকে অবশ্যই ৫০ জন শিক্ষার্থী পূরণ করতে হবে। তবে, নবম শ্রেণিতে মানবিক, বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা ইত্যাদি খোলার অনুমতি থাকতে হবে এবং প্রতি বিভাগে ন্যূনতম ২৫ জন শিক্ষার্থী থাকতে হবে।

অপরদিকে, উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শর্তগুলো হলো, ৬ষ্ঠ থেকে ১২শ শ্রেণি পর্যন্ত একক শ্রেণি বা শাখায় ৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা যাবে। তবে, ৫০ এর অধিক শিক্ষার্থী হলে ৪০ জনের ২য় শাখা খোলা যাবে। ৩য় বা তারও বেশি শাখা খোলার জন্য পূর্ববর্তী শাখাগুলোকে অবশ্যই ৫০ জন শিক্ষার্থী পূরণ করতে হবে। এক্ষেত্রে যে সমস্ত নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক প্রতিষ্ঠানে একক শ্রেণি বা শাখার শিক্ষার্থী সংখ্যা বেশি সে সমস্ত প্রতিষ্ঠানকে শ্রেণি বা শাখা খোলার অনুমতি গ্রহণ করতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষার্থী ভর্তির বিষয়ে আরও বলা হয়, নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক প্রতিষ্ঠানে ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত ৭০০ জন শিক্ষার্থী বোর্ডে অনুমতি ছাড়া ভর্তি করা যাবে। এ ক্ষেত্রে নিম্ন মাধ্যমিক পর্যায়ে অনুর্ধ্ব ৪৫০ জন, মাধ্যমিক পর্যায়ে ২৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা যাবে। এর অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করতে হলে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট বোর্ডের অনুমতি লাগবে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত