ঢাকা, শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ১১ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০৬ মার্চ ২০২১, ১৫:০৩

প্রিন্ট

‘গন্তব্য’র অংশ হতে পেরে আমি গর্বিত

‘গন্তব্য’র অংশ হতে পেরে আমি গর্বিত
ছবি: সংগৃহীত

বিনোদন ডেস্ক

চলতি বছরের মার্চ মাসটি অভিনেতা আফফান মিতুলের জন্য বেশ পয়মন্ত। গেলো ২ মার্চ ছিলো তার জন্মদিন। তবে জন্মদিনের সেরা উপহারটা যেনো পেলো তার সিনেমা মুক্তির খবর শুনে। হ্যাঁ, এ মাসেই অর্থাৎ ১৯ মার্চ মুক্তি পাচ্ছে আফফান মিতুল অভিনীত সিনেমা ‘গন্তব্য’। জন্মদিন উদযাপন, সাম্প্রতিক কাজ, ‘গন্তব্য’ সিনেমা নিয়েই বাংলাদেশ জার্নালের আজকের কথোপকথন। সঙ্গে ছিলেন নাজমুল হোসেন

বাংলাদেশ জার্নাল: এ মাসেই আপনার জন্মদিন ছিলো, কেমন কাটালেন?

আফফান মিতুল: জন্মদিনের রাত থেকেই ভক্ত-সহকর্মীদের শুভেচ্ছা বার্তা পাওয়া শুরু, সেটা এখনো চলমান। কেউ ফেসবুকে ছবি দিয়ে উইশ করছেন, কেউ ফোন করছেন। রাতে আমার মা-বাবা ছোট্ট একটা পার্টির আয়োজন করেছিলেন আমার বাসায়। পার্টিতে সিনেমা সংশ্লিষ্ট গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ছিলেন, সঙ্গে নিকটাত্মীয়রা ছিলেন। আর এবারের জন্মদিনটা আমার জন্যে অনেক স্পেশাল কারণ চলতি মাসের ১৯ তারিখ আমার অভিনীত সিনেমা ‘গন্তব্য’মুক্তি পাচ্ছে বেশকিছু প্রেক্ষাগৃহে।

বাংলাদেশ জার্নাল: ‘গন্তব্য’সিনেমায় আপনি কোন চরিত্রে অভিনয় করেছেন, ছবিটি নিয়ে আপনার প্রত্যাশা কেমন?

আফফান মিতুল: ‘গন্তব্য’ সিনেমার কাহিনী এগিয়েছে ৬ জন বন্ধুকে ঘিরে। এই ৬ জন বন্ধু একটি দেশাত্মবোধক সিনেমা বানাতে চায় এবং সেই সিনেমায় তারা অভিনয় করে। এরপর গল্প অন্যদিকে মোড় নেয়। আমি এই ৬ বন্ধুর মধ্যে একজন, অন্য ৫ জন বন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফেরদৌস, আইরিন, আমান রেজা, জিওন এবং এলিনা শাম্মী। সিনেমাটি নিয়ে আমি ভীষণ আশাবাদী। দেশপ্রেম থেকে হলেও সবার উচিত সিনেমাহলে গিয়ে এই ছবিটি দেখা। আর স্বাধীনতার মাসেই যেহেতু মুক্তি পাচ্ছে দেশপ্রেমের এই সিনেমাটি, তাই দেশের সুনাগরিক হিসেবে আমার গর্ব হচ্ছে সিনেমার একটা অংশ হতে পেরে।

বাংলাদেশ জার্নাল: ‘গন্তব্য’ সিনেমার নির্মাতা অরণ্য পলাশতো এই সিনেমা বানাতে গিয়েই হোটেল বয় হয়েছিলো? এটার সত্যতা কতটুকু?

আফফান মিতুল: এই বিষয়ে কোন কথা বলতে চাই না। অতীত নিয়ে ঘাটাঘাটি করে লাভ কী? বর্তমান বা ভবিষ্যৎ নিয়েই থাকতে চাই। আনোয়ার আজাদ ফিল্মসের কর্ণধার আনোয়ার আজাদ ‘গন্তব্য’ সিনেমার মালিকানা স্বত্ব কিনে নিয়েছেন অরণ্য পলাশের কাছ থেকে। ১৭ মার্চ এনটিভিতে সিনেমাটির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে এবং ১৯ মার্চ বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে।

বাংলাদেশ জার্নাল: ‘গন্তব্য’ সিনেমার সহশিল্পীসহ পরিচালকের সঙ্গে আপনার বোঝাপড়া কেমন ছিলো?

আফফান মিতুল: এই সিনেমায় অভিনয় করতে গিয়ে আমার সবচেয়ে বড় অর্জন হলো চিত্রনায়ক ফেরদৌস ভাইয়ের সান্নিধ্য পাওয়া। তিনি ভীষণ মিশুক ও সহযোগিতা পরায়ণ। এলিনা শাম্মী, আইরিন, আমান রেজা, কাজী রাজু এই ৪ জনের সাথে বেশ সখ্যতা হয় সিনেমার সেটে, যে সখ্যতা এখনো বিদ্যমান। আর পরিচালক অরণ্য পলাশ আমাকে খুব স্নেহ করেন আবার সম্মানও করেন। তার সঙ্গে বোঝাপড়াটা বেশ ভালো।

বাংলাদেশ জার্নাল: গেলো সপ্তাহে আপনি ‘আদম’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন? এই সিনেমা সম্পর্কে বলুন?

আফফান মিতুল: সবাই হয়তো খেয়াল করছেন আমি শুটিংয়ের কোন ছবি ফেসবুকে দিই না। এমনকি লুক প্রকাশ করি না। আমি দর্শকদের আগ্রহ নষ্ট করে দিতে চাই না। শুধু বলবো ‘আদম’ আমার ক্যারিয়ারে ভিন্ন মাত্রা যোগ করবে। আবু তাওহীদ হিরণ পরিচালিত এই সিনেমায় আমার সহশিল্পী ছিলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।

বাংলাদেশ জার্নাল: মুক্তির অপেক্ষায় আর কতটি ছবি আছে?

আফফান মিতুল: রুবেল মাহমুদের ‘নিশ্চুপ ভালোবাসা’, ফারুক হোসেনের ‘কাকতাড়ুয়া’ এই দু’টি সিনেমা আমার এই বছরই মুক্তি পাবে। ‘নিশ্চুপ ভালোবাসা’ সিনেমায় আমি জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেছি চিত্রনায়িকা সারা জেরিনের সঙ্গে। খুব শিগগিরই অভিনয় করবো সবুজ খানের ‘রজকিনী চণ্ডিদাস’, কাশেম শিকদারের ‘নরসুন্দর’, সাজ্জাদ খানের ‘জিহাদ’, সায়মন তারিকের ‘স্বপ্নের ফেরিওয়ালা’ এবং রুবেল মাহমুদের ‘নাও’, রানা ইব্রাহীমের ‘বেলা শেষে’ সিনেমাগুলোর প্রধান চরিত্রে। আরও কিছু সিনেমার ব্যাপারে কথা চলছে, ব্যাটে বলে মিলে গেলে সেই সিনেমাগুলোর কাজ হাতে নেব।

বাংলাদেশ জার্নাল: চারদিকে এখন ওয়েব ফিল্মের জয়জয়কার, কাজ করা হয়েছে কি?

আফফান মিতুল: ‘সাইকো লাভার’ শিরোনামের একটি ওয়েব ফিল্মে অভিনয় করেছি নাম ভূমিকায়। এতে আমার বিপরীতে ছিলেন চিত্রনায়িকা অরিন। সম্প্রতি ‘মুনাফিক’ ওয়েব ফিল্মে অভিনয় করলাম। এই দুইটি ওয়েব ফিল্ম ইন্ডিয়ার ওটিটি প্ল্যাটফর্মে রিলিজ হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত