ঢাকা, বুধবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮ আপডেট : ১১ মিনিট আগে

রাতের ঢাকার ক্ষুধা মেটাবে ‘মাঞ্চিস’

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩:১৩  
আপডেট :
 ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩:৩৮

রাতের ঢাকার ক্ষুধা মেটাবে ‘মাঞ্চিস’
মধ্য রাতে খাবার পৌঁছে দিতে আছে ই-কমার্স প্লাটফর্ম ‘মাঞ্চিস’
জার্নাল ডেস্ক

হঠাৎ রাত ২টার সময় ইউটিউবে একটা বিরিয়ানির ভিডিও দেখতে দেখতে আপনার বিরিয়ানি খাওয়ার ইচ্ছা জাগলো। কিন্তু রাত ২টার সময় কে ই বা আপনার জন্য বিরিয়ানি নিয়ে বসে আছে? কয়েক মাস আগে হলেও এক্ষেত্রে গাড়ি জোগাড় করে পুরান ঢাকায় গিয়ে বিরিয়ানির দোকান খোঁজা ছাড়া খুব বেশি অপশন ছিল না। কিন্তু এখন সেই সমাধান আপনার হাতের নাগালেই আছে।

‘মাঞ্চিস’ রাত ৮টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত ঢাকা শহরের কোণায় কোণায় পৌঁছে দিচ্ছে মজার মজার খাবার। বিরিয়ানি হোক বা পিৎজা, আইসক্রিম হোক বা কাবাব-পরোটা, ‘মাঞ্চিস’-এর তালিকা থেকে বেছে নিন আপনার যা খেতে ইচ্ছে করছে, আর রাতের আঁধার চিড়ে মাঞ্চিস-এর রাইডার খাবার নিয়ে পৌঁছে যাবে আপনার কাছে। আর শুধু খাবার না! রাতের বেলা আপনার যা কিছুর প্রয়োজন হতে পারে, তার জন্য এখন সকাল হবার অপেক্ষা না করে অর্ডার করে দিন মাঞ্চিস থেকে। মাস্ক, স্যানিটাইজার, মশার ওষুধ, স্যানিটারি প্যাড, জন্মনিয়ন্ত্রণ পণ্য বা সারপ্রাইজ বার্থডে পার্টির মোমবাতি – যেকোনো ইমারজেন্সি পণ্য নিয়ে আপনার রাতের ডেলিভারির জন্য আছে মাঞ্চিস।

ঢাকা শহরে আর এমন কোন ডেলিভারি সার্ভিস নেই যারা শুধুমাত্র রাতেই ডেলিভারি দেয়, যখন আর সবার সার্ভিস বন্ধ থাকে। আর অন্যান্য ডেলিভারি প্রতিষ্ঠানের মতো মাঞ্চিস-এর কোন দূরত্বের সীমাবদ্ধতাও নেই। তাই আপনি আজমপুর থাকুন বা আজিমপুর, ইসলামপুর থাকুন বা মিরপুর, মাঞ্চিসের সব পণ্যই চলে যাবে আপনার কাছে।

মাঞ্চিস-এর তিন কর্ণধার অনিত কুমার দাস, নাফিসা আনজুম অপলা এবং তামিম মৃধা অনেকটা হঠাৎ করেই শুরু করেন এই অনন্য ডেলিভারি সার্ভিসটি। ২০২০ সালের লকডাউনে যখন পুরো বিশ্ব গৃহবন্দী, তখন এই তিনজনই নিজেদের আলাদা আলাদা ফেইসবুক পেইজ থেকে মানুষের নানান ইমারজেন্সি চাহিদার ইনস্ট্যান্ট ডেলিভারি শুরু করেন। এক পর্যায়ে তিনজন একত্র হয়ে শুরু করেন ডেলিভারি সার্ভিস “নাও”। এরপর আর নতুন কি করা যায় ভাবতে ভাবতেই রাতের ঢাকার এই অত্যন্ত কাঙ্ক্ষিত সার্ভিসটির কথা মাথায় আসে তাদের।

আর সেই থেকেই শুরু হয় মাঞ্চিস-এর যাত্রা। মাঞ্চিস-এর তালিকায় প্রতিদিন যোগ হচ্ছে জনপ্রিয় সব রেস্টুরেন্ট ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানরা। খুব শিগগিরই আসছে মাঞ্চিস-এর ফোন অ্যাপ, যা থেকে অর্ডার দেয়া হয়ে যাবে আরও সহজ। ডেলিভারি সময় কমানোর জন্য কয়েকটি এলাকায় আসছে, ডেলিভারি পয়েন্ট। আরও অনেক নতুন নতুন ঘোষণাই আসছে মাঞ্চিস-এর পক্ষ থেকে। ততদিন পর্যন্ত চলতে থাকুক রাতের নানান অর্ডার আর মাঞ্চিস-এর সেবা।

বাংলাদেশ জার্নাল/আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত