ঢাকা, বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ৩ মিনিট আগে

শাহরুখ কোনও কালে বন্ধু ছিল না অজয়ের, দাবি কাজলের!

  বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশ : ০৬ মে ২০২২, ১৫:৫৫

শাহরুখ কোনও কালে বন্ধু ছিল না অজয়ের, দাবি কাজলের!
ছবি : আনন্দবাজার পত্রিকা
বিনোদন ডেস্ক

দু’জনই কাজলের প্রিয় পুরুষ। একজন প্রাণের বন্ধু। অন্য জনকে তিনি বেছে নিয়েছেন জীবনসঙ্গী হিসেবে। ঘটনাচক্রে, দু’জনই বলিউডের সমকালীন দুই অভিনেতা। তবে কাজল বেশ জোর দিয়েই জানিয়েছেন, তার দুই প্রিয় মানুষ শাহরুখ খান এবং অজয় দেবগণের মধ্যে কোনও দিনই সদ্ভাব ছিল না।

হিন্দি সিনেমায় কাজল-শাহরুখের জুটি শুরুতেই হিট করেছিল। পরে অজয়ের সঙ্গেও বহু ছবিতে অভিনয় করেছেন কাজল। কিন্তু অজয় আর শাহরুখ কখনওই এক সঙ্গে এক সিনেমায় কাজ করেননি।

সুযোগ যে আসেনি, তা নয়। এক বার একটি ছবিতে এক সঙ্গে কাজ করার প্রস্তাব এসেছিল দু’জনের কাছেই। ছবিতে অভিনয় করার কথা ছিল কাজলেরও। কিন্তু সেই প্রস্তাব অজয়ই ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। ছবিটির নাম ‘কর্ণ অর্জুন’।

রাকেশ রোশন পরিচালিত ছবিটি ১৯৯৫ সালে মুক্তি পেয়েছিল। নব্বইয়ের দশকের বলিউডের ‘মশলামাখা’ হিট ছবিগুলির একটি বলা যায় একে।

অজয়ের কাছে যখন এই ফিল্মের প্রস্তাব আসে, তখন বাজিগরের দৌলতে শাহরুখ-কাজলকে চিনে গিয়েছে হিন্দি ফিল্মের দর্শক। অজয়-কাজল তখনও অচেনা। দু’জনের প্রথম ছবি ‘হলচল’ মুক্তি পায়নি তখনও।

বলিউডের পুরনো খবর ঘেঁটে দেখা যাচ্ছে, ‘কর্ণ অর্জুন’-এর প্রস্তাব অজয় শুধু ফিরিয়ে দিয়েছিলেন তা নয়, শাহরুখকেও ছবিটি করতে বারণ করেছিলেন তিনি।

কাজল যতই বলুন, শাহরুখ-অজয়ের মধ্যে কখনওই সদ্ভাব ছিল না, আসলে কিন্তু তা নয়। ফিল্ম দুনিয়ার হাঁড়ির খবর, শাহরুখ-অজয় ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন এককালে। এমনও সময় ছিল যখন শাহরুখকে ছাড়া পার্টিতেই যেতেন না অজয়। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে পাশাপাশি দেখা যেত দুই অভিনেতাকে। কিন্তু রাকেশের ছবির প্রস্তাবের পরই সেই সম্পর্ক আচমকা বদলে যায়।

শোনা যায়, অজয়ের কথা না শুনেই ‘কর্ণ অর্জুন’-এর চিত্রনাট্য পড়েন শাহরুখ। পছন্দ হওয়ায় ছবিটি করতে রাজিও হয়ে যান। অজয়কে বাদ দিয়েই সালমানের সঙ্গে ছবিটি শেষ করেন শাহরুখ, কাজল।

ওই ঘটনাটির পর আর কখনওই এক সঙ্গে কোনও সিনেমায় বা বলিউডের পার্টিতে দেখা যায়নি অজয়-শাহরুখকে।

এমনকী ২০১২ সালে যখন অজয়ের ‘বিগ-বাজেট’ ছবি ‘সন অব সর্দার’ মুক্তি পাচ্ছে, ঠিক একই সময়ে একই দিনে শাহরুখ ও যশরাজ ফিল্মস প্রযোজিত ‘যব তক হ্যায় জান’-এর মুক্তির ব্যবস্থা করে। এই নিয়ে শাহরুখ শিবির এবং অজয় শিবিরের মধ্যে রীতিমতো বিবাদ হয় বলেও খবর।

কিন্তু সম্প্রতি একটি পান মশলার বিজ্ঞাপনে দুই পুরনো বন্ধুকে পাশাপাশি দেখে অবাক হন অনেকেই। বলিউডে দুই শত্রুর বন্ধু হওয়া বা বন্ধু অভিনেতাদের আচমকা শত্রু হওয়া নতুন কথা নয়। এ ক্ষেত্রেও প্রশ্ন ওঠে, শাহরুখ-অজয়ও কি তবে পুরনো রসায়ন বদলাতে চলেছেন? তিক্ততা ভুলে কি আবার বন্ধু হচ্ছেন কাজলের দুই প্রিয় মানুষ। প্রশ্ন রাখা হয়েছিল কাজলের কাছেই।

জবাবে কাজল বেশ সোজাসাপ্টাই জানিয়ে দেন, দু’জনের মধ্যে কোনও বন্ধুতা নেই। তবে শত্রুতাও নেই। তিনিও দু’জনের কাউকেই এ ব্যাপারে জোর দেন না।

কাজলের এই জবাবে বিষয়টিতে ইতি পড়তে পারত। কিন্তু সম্প্রতিই তা আবার প্রকাশ্যে আসে অজয়ের মন্তব্যে। একটি অনুষ্ঠানে অজয়কে বলতে শোনা যায়, শাহরুখের সঙ্গে তার সম্পর্ক নাকি কখনওই খারাপ ছিল না। পুরোটাই সংবাদমাধ্যমের তৈরি করা।

অজয়ের ব্যাখ্যা , কখনও সংবাদমাধ্যম কখনওবা ভক্তদের ভুলে এমন রটনা রটে যায়, যার বিন্দুমাত্র সত্যি নয়। তবে সমস্যা হল সংবাদমাধ্যমের ভুল হলে বিষয়টি কথা বলে শুধরে নেয়া যায়। কিন্তু অজয় জানিয়েছেন, কিছু অতি একনিষ্ঠ ভক্তকে নিয়ন্ত্রণ করা মাঝেমধ্যে কঠিন হয়ে পড়ে।

অজয় জানিয়েছেন, প্রত্যেক তারকার নিজস্ব বিশেষ ভক্তদের শিবির থাকে। তারা নিজেদের মধ্যে মাঝে মধ্যেই প্রিয় তারকাদের নিয়ে ঝগড়াঝাটি করেন। অজয় জানিয়েছেন, সবাই তখন ভেবে নেন, হয়তো ওই তারকাদের মধ্যেও কোনও সমস্যা চলছে।

অজয়ের মতে, এ ভাবেই অনেক ভুল তথ্য গুজব হয়ে ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু গুজবে যত কম কান দেওয়া যায় ততই ভাল!

অজয় বা কাজলের মন্তব্যের কোনও প্রতিক্রিয়া অবশ্য আসেনি ‘কিং খান’-এর কাছ থেকে। অন্য দিকে, অজয়ের সঙ্গে সম্পর্ক যেমনই হোক কাজলের সঙ্গে তার যোগাযোগ বরাবর রয়েই গিয়েছে।

তা হলে শেষ পর্যন্ত বিষয়টি কোথায় দাঁড়াল? অজয় কি শাহরুখের সঙ্গে তার পুরনো বন্ধুত্ব ফিরে পেতে চাইছেন? কাজল কি তা জানেন না। বিজ্ঞাপনে একসঙ্গ কাজ করার পর কি এ বার শাহরুখ-অজয় এক ছবিতে কাজ করবেন? পুরনো ভুল শুধরে নেবেন!

ভক্তদের অনুমান, এইসব প্রশ্নের জবাবে শেষ কথা হয়তো শাহরুখই বলতে পারবেন।

বাংলদেশ জার্নাল/এমএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত