ঢাকা, সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ৭ মিনিট আগে

দর্শকমহলে তুমুল প্রশংসিত ‘ত্যাগ’, নির্মাতার আত্মতৃপ্তি

  বিনোদন প্রতিবেদক

প্রকাশ : ২৬ মে ২০২২, ১৮:১৮

দর্শকমহলে তুমুল প্রশংসিত ‘ত্যাগ’, নির্মাতার আত্মতৃপ্তি
বিনোদন প্রতিবেদক

প্রেম-ভালোবাসা কিংবা পরিবারের গল্পের বাইরে সামাজিক ব্যাধি নিয়ে নির্মিত হয়েছে বিশেষ নাটক ‘ত্যাগ’। প্রেম-ভালোবাসা কিংবা অনুভূতির বাইরেও সমাজের জন্য একটি অন্যরকম বার্তা দেওয়া হয়েছে এখানে। রিজভী আলামিনের গল্পে নাটকটি পরিচালনা করেছেন মেহেদি হাসান জনি। গল্পের প্রধান দুই চরিত্র আরাফ ও নিশিরূপে দেখা গিয়েছে জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ও তাসনিয়া ফারিণকে।

ইউটিউবে প্রকাশ হওয়া শত শত নাটকের ভিড়ে নজর কেড়েছে অপূর্ব ও তাসনিয়া ফারিণের বার্তাবাহী এ নাটকটি। প্রচারের পর দর্শকমহলে দারুণ প্রশংসা পাচ্ছে। শুরু থেকে রোমান্টিক ধাঁচে গল্পটি এগিয়ে গেলেও শেষটা ছিল অন্যরকম। বিশেষ করে নাটকটির চিত্রনাট্য ছিল অনবদ্য। অপূর্ব ও ফারিণের বেশ কিছু সংলাপের প্রশংসা করছে দর্শক। সবকিছু মিলিয়ে এই মুহূর্তে আলোচিত নাটকেগুলোর একটি ‘ত্যাগ’।

ইউটিউবে শত শত পজেটিভ মন্তব্যের বাইরেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাটকটির প্রশংসায় দেখা গিয়েছেন বহু পজেটিভ মন্তব্য ও আলোচনা। চমৎকার একটি গল্পে নাটকটি নির্মাণের জন্য নির্মাতা এবং অসাধারণ অভিনয়ের জন্য প্রশংসা পাচ্ছেন অভিনয়শিল্পীরা। ইতিমধ্যে নাটকটি দেখেছেন দশ লাখেরও বেশি মানুষ।

ইউটিউবে একজন মন্তব্য করেন, সুন্দর একটা গল্পের অসাধারণ নাট্যরূপ, সেইসঙ্গে মনোমুগ্ধকর অভিনয়।

আরেকজন লিখেন, খুব সুন্দর একটি নাটক। এইধরনের সামাজিক ব্যাধি একটা সমস্যা।পরিচালককে ধন্যবাদ এমন একটি ঘটনা তুলে ধরার জন্য।

আরও একজন লিখেন, দ্বিতীয় পর্ব চাই, কমন প্রেম কাহিনীর বাহিরে যেয়ে ভয়ংকর এক সামাজিক ব্যাধিকে ফুটিয়ে তোলা, এক কথায় হৃদয় ছোঁয়া ও সচেতনতামূলক।

রবিন নামের একজন লিখেন, অসাধারণ অসাধারণ একটা নাটক। ছোট হলেও ম্যাসেজটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বর্তমান সময়ের জন্য। অসাধারণ অভিনয় ফারিণের।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাট্যকার আফরীন জামান লীনা লিখেন, কোন রকম ভনিতা না করেই বলছি নিঃসন্দেহে ত্যাগ আমার দেখা এ যাবতের সর্ব সেরা নাটকের একটা হয়ে থাকবে। বিশ্বাস করেন আমি এই নাটক দেখার পরে দশ মিনিট স্তব্ধ হয়ে ছিলাম। আমি যদি কোন পুরস্কার কমিটির মালিক হতাম এই নাটকের আপ টু বোটম পুরা টিমকে আমি শ্রেষ্ঠ ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃত করতাম। আফসোস।

নির্মাতা মেহেদী হাসান জনি বলেন, নাটকটি মুক্তি পাওয়ার পরে আমি ওপার বাংলা থেকে অনেক ফোন পাচ্ছি। আমাদের এখান থেকেও অনেকের কাছ থেকে ফোন, মেসেজ পাচ্ছি। সবাই নাটকটির প্রশংসা করছে। যেদিন আমি গল্পটি অপূর্ব ভাইয়ের সঙ্গে শেয়ার করি তিনি আগ্রহের সঙ্গে জিজ্ঞেস করেন যে, কবে শুটিংয়ে যেতে চাই আর ফারিণ গল্পটি শোনার পরেই বলে, বাকিদের কথা জানি না, তবে এই গল্পে আমি কাজ করব। এখানেই আমার ভালো লাগা, যখন একটা গল্পে নাটক বানিয়ে সেটা দর্শক এবং অভিনেতা সবাই সেটা নিয়ে আলোচনা করে।

তিনি আরও বলেন, চেষ্টা ছিল নতুন কিছু উপহার দেয়ার। প্রকাশের পর সবাই প্রশংসা করছেন, গঠনমূলক আলোচনা করছেন; এতে করে পরিশ্রম সার্থক হয়েছে বলে মনে করছি।

অপূর্ব-ফারিণ ছাড়াও নাটকটিতে আরও অভিনয় করেছেন সাবেরি আলম, শোয়েব মনির প্রমুখ।

বাংলাদেশ জার্নাল/আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত