ঢাকা, শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ আপডেট : ৫ মিনিট আগে

ব্যবসা নয়, সেবার জন্যই হাসপাতাল: আনোয়ার খান এমপি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ২০ মে ২০২০, ১৮:০৮  
আপডেট :
 ২১ মে ২০২০, ১৬:১৬

ব্যবসা নয়, সেবার জন্যই হাসপাতাল: আনোয়ার খান এমপি
নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে প্রথম কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতাল হিসেবে করোনা চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করেছে আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২০০ শয্যার করোনা ইউনিট। মঙ্গলবার থেকে রোগী ভর্তি শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, এখনো পর্যন্ত ১২ জন রোগী করোনা ইউনিটে ভর্তি হয়েছেন। আরো বেশ কিছু রোগীর ভর্তি কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। সর্বোচ্চ দিয়ে করোনা রোগীদের সেবায় নিয়োজিত রয়েছে হাসপাতালটি।

আরো পড়ুন: ব্যবসা নয়, সেবাই মুখ্য: আনোয়ার খান এমপি

আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল সূত্র জানিয়েছে, সরকারের সাথে চুক্তি অনুযায়ী কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর বিনা মূল্যে সেবা প্রদান করা হচ্ছে। এ জন্য মাত্র ১৯ দিনের মধ্যে আলাদা করোনা ইউনিট গঠন করা হয়েছে। কোভিড রোগীদের ২৪ ঘণ্টা সব ধরনের চিকিৎসা সেবা পরিচালনার লক্ষ্যে টেলিমেডিসিনসহ অবকাঠামোগত এবং প্রযুক্তিগত সহায়তা প্রদান করছে আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে রোগীদের সেবা প্রদানের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব অর্থায়নে বিপুল অঙ্কের টাকার যন্ত্রপাতি কেনা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে বেড, কেবিন, আইসিইউ, সিসিইউ, অ্যাম্বুলেন্সসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি প্রস্তুত রয়েছে, সেবা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এ লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে রোগীদের সেবা দিতে প্রতি মাসে প্রায় ৫০ লাখ টাকা ভর্তুকি দেয়া হবে বলেও জানা গেছে।

আরো পড়ুন: গণমাধ্যমকর্মীরাও করোনার চিকিৎসা পাবেন

এর আগে গতি শনিবার করোনা ইউনিট উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপাতির বক্তব্যে আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ড. আনোয়ার হোসেন খান এমপি বলেছিলেন, চিকিৎসা ক্ষেত্রে ব্যবসা নয়, সেবাই মুখ্য।

তিনি বলেন, জাতির এই ক্রান্তিকালে প্রধানমন্ত্রীর ডাকে করোনা রোগীদের সেবায় আমরা সম্পূর্ণ নতুন বিল্ডিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সার্বিক তত্ত্বাবধানে মাত্র ১৯ দিনে সুসজ্জিত নতুন একটি ২০০ বেডের করোনা রোগীদের সেবা দানের লক্ষ্যে প্রস্তুত করেছি। এছাড়া পুরাতন ৭৫০ বেডের নন-কোভিড হগাসপাতালটিতে সব ধরণের রোগীদের চিকিৎসা ২৪ ঘণ্টা চালু রয়েছে। নন কোভিড হাসপাতালে করোনা রোগী ভর্তি করা হবে না।

ড. আনোয়ার হোসেন খান বলেন, সরকারের সাথে আমাদের যে কমিটমেন্ট ছিলো সেটি আমরা পালন করেছি। প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় আমরা কোভিড হাসপাতাল নির্মাণ করেছি। আমরা মানুষের জন্য মানবতার কল্যানে কাজ করতে চাই। আমি অন্য কিছু কখনো চাই নি। আমরা এখানে কোন চিকিৎসা সেবার বিনিময়ে অর্থ উপার্জন করবো না বা রোগীদের সাথে ব্যবসা করবো না। শুধুমাত্র সেবা প্রদানই এখানে মুখ্য।

তিনি আরো বলেন, আমরা আমাদের হাসপাতালে কোভিড, নন-কোভিড উভয় সেবা অব্যাহত রেখেছি। এজন্য সম্পূর্ণ ভিন্নভাবে আলাদা ভবনে ২০০ বেডের করোনা ইউনিট নির্মাণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নতুন এই ডেডিকেটেড কোভিড হাসপাতালটি রোগীদের স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের জন্য উৎসর্গ করা হলো। আমরা চাই হাসপাতাল থেকে কোন রোগী যাতে ফিরে না যায় সেজন্য আমাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করেছি। নন-কোভিড রোগীরা যাতে কোনো ধরনের অসুবিধা না হয় সেজন্য আমাদের সকল কার্যক্রম চালু রেখেছি।

তিনি বলেন, জাতির এই দুর্যোগে আমরা মানুষের সঙ্গে থাকতে চাই। আমরা মানুষের সাথে কাজ করতে চাই। করোনাভাইরাসকে জয় করতে চাই। রোগীদের সেবা দিয়েই আমরা এই সফলতা পেতে চাই। সুতরাং সেবার মধ্য দিয়ে আমরা করোনাভাইরাসকে প্রতিহত করবো এবং জয় করবো।

আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান আরো বলেন, এখানে উন্নত চিকিৎসা হবে। এখানে সকল শ্রেণির চিকিৎসকও আছেন। এমনকি এখানে তিন বেলার খাবারও আলাদা জায়গা থেকে তৈরি করে দেয়া হবে।

চিকিৎসার ব্যয় কেমন হবে- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার হোসেন খান বলেন, আমরা প্রাথমিক অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সৌজন্যে কোনো খরচ নেবো না। এটা মন্ত্রণালয় এবং আমরা যৌথ উদ্যোগে করেছি। সুতরাং এখানে প্রাথমিকভাবে খরচের ব্যাপারে আমরা চিন্তা করছি না।

এসময় তিনি আরো জানান, আমাদের কোভিড ইউনিটে গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য ১০ সিট বরাদ্দ রয়েছে। কোনো গণমাধ্যমকর্মী আক্রান্ত হলে আমাদের এখানে চিকিৎসা সেবা নিতে পারবেন। বর্তমানে সরকারি হাসপাতালগুলো যেভাবে চিকিৎসা দিচ্ছে, ঠিক সেইভাবে এই হাসপাতালেও চিকিৎসা দেয়ার জন্য ঠিক করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তাছাড়া আমরা টাকার জন্য এই হাসপাতাল তৈরি করিনি। জীবন বাঁচাতে এবং মানবিক কর্মী হিসেবে মানুষের পাশে আমরা থাকতে চাই বলেও জানান আনোয়ার হোসেন খান।

করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসায় যে বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালগুলো সরকারের সঙ্গে চুক্তি করেছে তার মধ্যে অন্যতম আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। প্রতিষ্ঠানটির একটি ভবনে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা দিতে ২০০ শয্যা প্রস্তুত করা হয়েছে। সঙ্গে রয়েছে ১০ বেডের আইসিইউ আর ডায়ালাইসিসের ব্যবস্থা। পুরো ভবনটিতে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে, ফলে দুইশো রোগীর সবাইকেই অক্সিজেন দেয়া যাবে। করোনা ইউনিটে ২৩টি কেবিনসহ ৪৯টি আইসোলেশন শয্যা রাখা হয়েছে। আইসোলেশনে থাকা রোগীদের একঘেয়েমি দূর করারও ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। করোনা পরীক্ষার জন্য অত্যাধুনিক আরটিপিসিআর মেশিন বসানো হয়েছে। অন্যান্য রোগ নির্ণয়ের জন্য আলাদা প্যাথোলজি ল্যাব এবং এক্সরে মেশিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এসব কার্যক্রমের সব ব্যয় হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির নিজস্ব অর্থায়নে।

দুইটি আলাদা ভবনে কোভিড এবং নন-কোভিড দুই ধরনের রোগীর চিকিৎসা করবে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার পাশপাশি এই রোগ নিয়ে গবেষণাও করবে প্রতিষ্ঠানটি। করোনা ইউনিটের দুইশো রোগীর সেবায় একশো চিকিৎসক, দুইশো নার্স এবং দুইশো স্বাস্থ্য কর্মীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। তাদের থাকা-খাওয়ার আলাদা ব্যবস্থা রয়েছে। করোনা রোগী আনা নেয়ার জন্য করা হয়েছে আলাদা অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের করোনা ইউনিটের সব ডাক্তার, নার্সসহ সেবাদানকারীদের থাকা-খাওয়া এবং বেতন-ভাতা সরকার থেকে দেয়া হবে। এছাড়া সেবাদানকারীদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ভাইরাস মোকাবেলার বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত