ঢাকা, রোববার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০২০, ১৩:৪৩

প্রিন্ট

আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজে বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালিত

আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজে বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার সকালে প্রতিষ্ঠানটির ধানমণ্ডিস্থ নিজস্ব ক্যাম্পাসে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

হাসপাতালের পক্ষ থেকে শনিবার সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত হাসপাতাল ভবনে বিনামূল্যে রোগীদের ডায়াবেটিস চেকআপের ব্যবস্থা করা হয়। এন্ডোক্রাইন এন্ড ডায়াবেটিস বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক এম এ মান্নানের তত্ত্বাবধায়নে পুরো আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। আয়োজনে সহযোগিতা করে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান নভোনোর্ডিস্ক।

সকাল ১০টায় মেডিকেল কলেজের এফ ব্লকের সামনে থেকে দিবসটি উপলক্ষে একটি জনসচেতনতামূলক শোভাযাত্রা বের করা হয়। এর প্রতিপাদ্য ছিল ‘ডায়াবেটিস-সেবায় পার্থক্য আনতে পারেন নার্সরাই’।

এসময় উপস্থিতি ছিলেন মডার্ণ হেলথ গ্রুপ অব কোম্পানিজের উপদেষ্টা অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল আশরাফ আবদুল্লাহ ইউসুফ, মেডিকেল কলেজের নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুর রহমান, প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এখলাসুর রহমান, উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. হাবিবুজ্জামান চৌধুরী, প্রথিতযশা সাংবাদিক ও বাংলাদেশ জার্নালের সম্পাদক শাহজাহান সরদার, পরিচালক অধ্যাপক ডা. এহতেশামুল হক, পরিচালক অধ্যাপক ডা. এনায়েত, অধ্যাপক ডা. মাহফুজুর রহমান, অধ্যাপক ডা. জাকিয়া সুলতানাসহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক, শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

পরবর্তীতে ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত জনসচেতনতামূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক অধ্যাপক এম এ মান্নান বলেন, ‘বর্তমানে ডায়াবেটিস একটি ভয়াবহ রোগের নাম। এটিকে নিরব ঘাতক বলা হয়। এ বিষয়ে আমাদের সবার সচেতনতা প্রয়োজন। আর এটা অবশ্যই পরিবার থেকে শুরু করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘যেসব রিস্ক ফ্যাক্টর আছে সেগুলোকে এড়িয়ে চলতে হবে। চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে চললে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি এড়িয়ে সুস্থভাবে জীবনযাপন করা যায়।’

নতুন বাজারজাতকৃত লিলি ইনসুলিনের কার্যকারিতা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘নির্দিষ্ট কিছু রোগীর ক্ষেত্রে ইনসুলিন সপ্তাহে অন্তত একবার ব্যবহার করলেই উপকার পাওয়া যাবে। এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য একটি সুখবর বলা যেতে পারে।’

এসময় তিনি আধুনিক গবেষণা ও চিকিৎসা পদ্ধতি সম্পর্কেও আলোকপাত করেন এবং ডায়াবেটিসের উপর প্রেজেন্টেশন প্রচার করেন।

অনুষ্ঠানে মডার্ণ হেলথ গ্রুপ অব কোম্পানিজের উপদেষ্টা অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল আশরাফ আবদুল্লাহ ইউসুফ বলেন, ‘আমি এবং আমার মা উভয়ই ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। আজকের এই অনুষ্ঠান থেকে আমরা অনেক জ্ঞানই অর্জন করলাম, যেটি আমাদের জন্য কার্যকর হবে।’

আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এখলাসুর রহমান বলেন, ‘ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের জন্য সচেতনতা প্রয়োজন। নিয়ন্ত্রিত জীবন যাপনের মাধ্যমেও ডায়াবেটিস রোগেরও নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।’

বাংলাদেশ জার্নাল সম্পাদক শাহজাহান সরদার বলেন, ‘আমি নিজেও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। আলোচনা থেকে আমরা অনেক কিছুই শিখলাম এবং জানলাম। যা আমাদের সুস্থ জীবন যাপনে সহায়তা করবে।’

বাংলাদেশ জার্নাল/টিও/কেআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত