ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫ অাপডেট : ১৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:০০

প্রিন্ট

লাল রঙের খাবারই রাখবে সুস্থ

লাল রঙের খাবারই রাখবে সুস্থ
জার্নাল ডেস্ক

রঙিন লাল টুকটুকে খাবার শুধু দেখতেই সুন্দর নয়। এই রঙের খাবার শরীরের জন্য অসম্ভব উপকারি। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা বলেন, সপ্তাহে অন্তত ৫–৬ দিন এই ধরনের খাবার খেলে রক্তচাপ ও খারাপ কোলেস্টেরল কমিয়ে রাখা যায় সহজেই। আর হৃদরোগের ঝুঁকিও কমে প্রায় ৪০ শতাংশ। অনেক লাল খাবারের মধ্যে লাল শাক, চেরি, স্ট্রবেরি ও লাল আঙুরও রাখতে পারেন। যদিও এ খাবারগুলোর সাথে অন্যান্য খাবারও বুঝে খেতে হবে।

কেন খাবেন লাল খাবারঃ লাল রঙের খাবারে আছে লাইকোপিন। খারাপ কোলেস্টেরল ও হার্টের ধমনিতে চর্বি জমার হার কমাতে যার ভূমিকা অনেক। টমেটো সপ্তাহে ৫ দিন করে ১০–১২ বছর খেলে ইসকিমিক হৃদরোগের আশঙ্কা প্রায় ২৬ শতাংশ কমে যায়।

বিভিন্ন গবেষণা থেকে জানা গেছে, প্রতিদিন একটি লাল আপেল খেলে খারাপ কোলেস্টেরল প্রায় ৪০ শতাংশ কমে যায়।

লোয়া ওমেন্স হেলথ স্টাডি অনুযায়ী, যারা প্রতিদিন আপেল খান তাদের মধ্যে হৃদরোগে মৃত্যুর হার কম। তবে এই উপকার পেতে গেলে জুস করে নয়, আপেল খেতে হবে চিবিয়ে। কারণ আপেলের খোসাতেই উপকার বেশি।

প্রতিদিন তিন কাপ ক্র্যানবেরির রস খেলে উপকারি এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ে প্রায় ১০ শতাংশ। যা হৃদরোগের আশঙ্কাও কমায় প্রায় ৪০ শতাংশ।

স্ট্রবেরিতে আছে ফোলেট। যা হার্টের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে দারুণ কাজ করে। চেরির মধ্যে থাকা ভিটামিন সি হার্ট যেমন ভাল রাখে তেমনি ফাইবার ও পটাশিয়ামের জন্য কম থাকে হাই কোলেস্টেরল ও প্রেশার।

লাল আঙুরে আছে প্রোয়্যান্থোসায়ানিডিন ও অন্যান্য ফ্ল্যাভোনয়েড পলিফেনল। নিয়মিত খেলে চর্বি জমে হৃদধমনির পথ বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা অনেক কমে যায়।

নিয়মিত তরমুজ খেলে প্রচুর ভিটামিন সি পাওয়া যায়। এতে উচ্চ রক্তচাপ ও ধমনিতে চর্বি জমার প্রবণতা কমে। তরমুজের ক্যালোরিও খুব কম থাকে। তার উপর এতে আছে সিট্রুলিন নামের উপাদান, যার প্রভাবে শরীরে চর্বি কম জমে।

লাল বাঁধাকপিতে আছে অ্যানথ্রোসায়ানিন পলিফেনল, কোলেস্টেরল কমাতে কাজ করে দারুণ ভাবে। আর ক্যালোরি কম থাকায় পরিমাণমতো খেলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। তবে বেশি না ভেজে ভাপিয়ে রান্না করলেই উপকার পাওয়া যায় বেশি।

লালচে রংয়ের পিঁয়াজ কিন্তু বেশ উপকারি। যা নিয়মিত খেলে ভিটামিন সি–এর কারণে ইসকিমিক হৃদরোগের প্রবণতা কমে। এমন কি রক্তে ইনসুলিনের মাত্রাও ঠিক থাকে।

আরএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close
close