ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ১১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:৫০

প্রিন্ট

বাংলাদেশে খুলে দেওয়া হলো পাবজি

বাংলাদেশে খুলে দেওয়া হলো পাবজি
নিজস্ব প্রতিবেদক

জনপ্রিয় অনলাইন গেম ‘প্লেয়ার আননোনস ব্যাটল গ্রাউন্ডস’ (পাবজি) গেমটি কয়েক ঘণ্টা বন্ধ রাখার পর আবারো খুলে দেওয়া হয়েছে। এটি আর ‘ব্লক’ নেই বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

পাবজি কেন নিষিদ্ধ করা হয়েছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) রাতে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার গণমাধ্যমকে বলেন, নিষিদ্ধ করা হয়ে ছিল, সেটা আবার খুলে দেওয়া হয়েছে। আমাদের ধারণা ছিলো, এটি খুব ক্ষতিকর একটি বিষয়। পরে পর্যালোচনা করে দেখে ক্ষতিকারক এমন কোনো কিছু পাওয়া যায়নি। তাই খুলে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া শুক্রবার রাত সোয়া ১০টার দিকে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে মোস্তাফা জব্বার এ কথা জানান।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে মন্ত্রী লেখেন, পাবজি ব্যবহারকারী যারা এটি ব্লক করায় নাখোশ ছিলেন তারা জেনে খুশি হবেন যে এটি আর ব্লক করা নেই।

এর আগে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম বিভাগ সূত্রের বরাতে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, বাংলাদেশে পাবজি গেম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গেমটি ব্লক করে দেওয়া হয় বলে জানানো হয়।

চীন, নেপাল, ইন্দোনেশিয়া, জর্ডান ও ভারতের কয়েকটি রাজ্য এরই মধ্যে পাবজি নিষিদ্ধ করেছে। বাংলাদেশে এই গেম বন্ধের আলোচনা শুরু হয় চলতি বছরের এপ্রিলে। নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে বন্দুকধারীর হামলার পর বিষয়টি আরও গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়। কারণ নৃশংস ওই হত্যাকাণ্ডের ধরনের সঙ্গে পাবজি গেমের সাদৃশ্য রয়েছে বলে অনেকে মনে করেন। এরপর চলতি মাসের শুরুতেই বাংলাদেশে এই গেম খেলতে প্রতিবন্ধকতার কথা জানান অনেকে।

পাবজি খেলেন, এমন কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অনলাইন ভিত্তিক ভিডিও গেমটি কয়েকজন মিলে খেলতে হয়। একটি বিমানে করে প্যারাশুটের মাধ্যমে প্লেজোনে নামতে হয়। যা অনেকটা দ্বীপের মতো। এক বা চার জনের গ্রুপ করে গেমটি খেলা যায়। প্রতিপক্ষ নিজে বা গ্রুপ বাদে বাকি সবাই। অন্যদের মেরে নিজে টিকে থাকতে হয়। শেষ পর্যন্ত যে বা যে গ্রুপটি টিকে থাকে, তারাই বিজয়ী হয়।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান ব্লু-হোয়েলের তৈরি করা এই গেম ২০১৭ সালে চালু হয়। ১০ কোটির বেশি বার এটি ডাউনলোড করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে একজন অংশগ্রহণকারীকে এই ভিডিও গেমটিতে মগ্ন রাখা হয়। যা অনেকটা আসক্তির পর্যায়ে চলে যায়। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী বিশেষ করে তরুণরা পাবজি খেলায় বেশি অংশ নেয়। সাধারণ নাগরিকদের মতের ভিত্তিতেই পাবজি গেমটি বাংলাদেশে বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও আপাতত এটি বন্ধ করা হয়নি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত