ঢাকা, শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ২৭ আষাঢ় ১৪২৭ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৯ মে ২০২০, ২০:৫৬

প্রিন্ট

দিনকে দিন দুর্বল হচ্ছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন

দিনকে দিন দুর্বল হচ্ছে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন
ফাইল ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন দিনকে দিন দুর্বল হচ্ছে বলে সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে জার্মান ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ডয়চে ভেলে। খবরে বলা হয়েছে বিশ্বনেতারা এখন এই মিশন থেকে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। পিছিয়ে যাচ্ছে সদস্য দেশগুলোও।

প্রতিবেদন অনুসারে, প্রাথমিকভাবে ইসরায়েল ও আরব দেশগুলোর মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং কাশ্মীর নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সংঘাত বন্ধের উদ্যোগ নিতে ১৯৪৮ সালে শান্তিরক্ষা মিশন গঠন করা হয়৷ জাতিসংঘের সদস্যভূক্ত বেশিরভাগ দেশ তাতে সমর্থন দেয়। ওই বছর ইউনাইটেড ন্যাশনস ট্রুস সুপারভিশন অর্গানাইজেশন (ইউএনটিএসও) নামে প্রথম মিশনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘ব্লু হেলমেট’র যাত্রা শুরু হয়। সে সময় মিশনের লক্ষ্য ছিল ইসরায়েল ও তাদের প্রতিবেশী আরব দেশগুলো মধ্যে যুদ্ধবিরতির অবস্থা পর্যবেক্ষণ করা।

পরের বছর কাশ্মীর নিয়ে বিরোধের নিষ্পত্তিতে কাজ শুরু করে ইউনাইটেড ন্যাশনস মিলিটারি অবজারভেশন গ্রুপ (ইউএনএমওজিআইপি)। ইউএনটিএসও এবং ইউএনএমওজিআইপি-র কার্যক্রম এখনো চলছে৷ কিন্তু কোথাও শান্তি প্রতিষ্ঠা হয়নি।

ট্রাম্প বাজেট কমিয়েছেন

২০১৫ সালের আগে শান্তিরক্ষা মিশনে কাজ করছে এক লাখ ১০ হাজারের বেশি সেনা ও পুলিশ কর্মকর্তা। কিন্তু বর্তমানে এ সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ৯০ হাজারে।

শান্তিরক্ষা মিশন নিয়ে বিশ্ব নেতাদের আগ্রহ কমে যাওয়ার কারণ ব্যাখ্যায় স্টোকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিচ রিসার্চ ইন্সটিটিউটের জ্যেষ্ঠ গবেষক ফর দের লিন বলেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অনেক সদস্যের মতে শান্তিরক্ষা মিশনের খরচ অনেক বেশি, সেই তুলনায় অর্জন খুবই সামান্য৷ এ কারণে নেতারা এই খাতে বাজেট কমাতে চাইছেন। ট্রাম্প প্রশাসন যার নেতৃত্ব দিচ্ছে।

শান্তিরক্ষা মিশনে গিয়ে এখন পর্যন্ত প্রায় চার হাজার শান্তিরক্ষী নিহত হয়েছেন। এ অবস্থায় দেশগুলোর মধ্যে শান্তিরক্ষা মিশনে সেনা পাঠানো নিয়ে অনাগ্রহ প্রকাশ পাচ্ছে। আফ্রিকায় মোতায়েন করা শান্তিরক্ষী বাহিনীর ৭০ শতাংশই এখন দক্ষিণ সাহারা অঞ্চলে অবস্থান করছে৷ এ অঞ্চলের বড় বড় কয়েকটি মিশন বন্ধ রেখে যুদ্ধ বিধ্বস্ত লিবিয়া ও ইয়েমেনে নতুন মিশন শুরু করতে হয়েছে। সূত্র: ডয়চে ভেলে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
best