ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮ আপডেট : ২ মিনিট আগে

মুম্বাইয়ের মেয়ে সঞ্জলের মহাকাশযানে উড়বেন বেজোস

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ১৯ জুলাই ২০২১, ২৩:১৯  
আপডেট :
 ১৯ জুলাই ২০২১, ২৩:৩০

মুম্বাইয়ের মেয়ে সঞ্জলের মহাকাশযানে উড়বেন বেজোস
জার্নাল ডেস্ক

অ্যাপলো’র চাঁদে অবতরণের ৫২তম বছরকে সম্মান জানাতে বিশ্বের শীর্ষ ধনী জেফ বেজোস মহাকাশে রওনা হচ্ছেন মঙ্গলবার।যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বখ্যাত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) বেজোস নিজস্ব প্রতিষ্ঠান ব্লু অরিজিনের একটি নতুন শেপার্ড রকেটে চড়ে মহাকাশে উড়বেন। যে মহাকাশযানে তিনি উড়াল দিতে চলেছেন, এর মূল কারিগর মুম্বাইয়ের মেয়ে সঞ্জল গবান্ডে।

মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম নিয়ে আকাশ ছোঁয়ার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছেন সঞ্জল। ৩০ বছর বয়সী এই ইঞ্জিনিয়ারের জন্ম মহারাষ্ট্রের কল্যাণের এক মধ্যবিত্ত পরিবারে।তার বাবা মু্ম্বই কল্যাণ-দম্ভিবলি পুরসভায় কাজ করতেন। মা এমটিএনএল-এর অবসরপ্রাপ্ত কর্মী। মুম্বাইয়ের স্কুলেই পড়াশোনা সঞ্জলের। মুম্বই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেন।২০১১ সালে স্নাতকোত্তরের জন্য সঞ্জল যুক্তরাষ্ট্রে উড়ে যান। আমেরিকার মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়েই স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

সঞ্জল স্বপ্ন দেখেছিলেন মহাকাশযান বানানোর। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিগ্রি অর্জন করেই তাই তিনি নাসায় কাজের জন্য আবেদন করেন। কিন্তু নাগরিকত্ব সংক্রান্ত কিছু সমস্যার জন্য নাসায় চাকরি করা হয়ে ওঠেনি। কিন্তু ভেঙে পড়েননি সঞ্জল।মেরিন এবং রেসিং কার সংস্থার জন্য কাজ শুরু করেন তিনি। তখন তিনি টয়োটায় কাজ করতেন। টয়েটোয় থাকাকালীন তিনি পাইলটের প্রশিক্ষণও নিতে শুরু করেছিলেন। সপ্তাহে ছুটির দিনে প্রশিক্ষণ নিতেন। ২০১৬ সালে পাইলটের লাইসেন্সও পেয়ে যান। সব কিছুর মধ্যেও মহাকাশযানের স্বপ্ন দেখা ছাড়েননি সঞ্জল। সেই স্বপ্ন বাস্তব রূপও পেল। অ্যামাজন প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোসের মহাকাশযান দলের সদস্য হলেন তিনি।যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ২০ জুলাই সকাল ৮টায় পশ্চিম টেক্সাসের মরুভূমির ‘লঞ্চ সাইট ১’ থেকে চার জন যাত্রী-সহ উৎক্ষেপিত হবে ‘নিউ শেপার্ড’। এদের মধ্যে অন্যতম হলেন জেফ বোজেস।

আমাজনের প্রতিষ্ঠাতার সহযাত্রী হচ্ছেন ৮২ বছর বয়সি বিমানচালক ওয়ালি ফাঙ্ক। সব ঠিক থাকলে তিনিই হবেন প্রবীণতম মহাকাশচারী। আবার অলিভার ডিমেন নামে এক ডাচ কিশোর হবেন সর্বকনিষ্ঠ মহাকাশযাত্রী। ১৮ বছরের অলিভার নেদারল্যান্ডসের এক ধনকুবেরের ছেলে। সঙ্গ দেবেন জেফের ভাই মার্কও। জেফের সংস্থা ‘ব্লু অরিজিন’ এই রকেট বানিয়েছে। রকেটটি বানানোর জন্য বাছাই করা দক্ষ ইঞ্জিনিয়ারদের নিয়োগ করেছেন জেফ। ওই দলেরই একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হলেন সঞ্জল। রকেটের ইঞ্জিন বানানোর দায়িত্ব ছিল তারই উপর।

বাংলাদেশ জার্নাল-ওআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত