ঢাকা, রোববার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮ আপডেট : ২ মিনিট আগে

এপির সঙ্গে সাক্ষাৎকারে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী

ইরাকে মার্কিন যুদ্ধ-সেনার আর প্রয়োজন নেই

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:০৫  
আপডেট :
 ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:১৩

ইরাকে মার্কিন যুদ্ধ-সেনার  আর প্রয়োজন নেই
ইরাকের রাস্তায় গাড়ি দিয়ে সেনাবাহিনীর টহল। ছবি : আল জাজিরা
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্ট্যাট বা আইএসকে মোকাবেলা করার জন্য ইরাকে মার্কিন যুদ্ধ-সেনার আর কোনো প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল কাধিমি। তিনি জানান, তবে এ সপ্তাহে নির্ধারিত আলোচনার ভিত্তিতে এসব বিষয় নিয়ে একটি আনুষ্ঠানিক সময়সীমা নির্ধারিত হবে। মার্কিন বার্তাসংস্থা এপিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মুস্তফা আল কাধিমি বলেন, ইরাক এখনও দেশে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশিক্ষণ ও সামরিক গোয়েন্দা উপস্থিতি চাইবে। তবে যুদ্ধ-সেনাদের ফিরিয়ে নেওয়ার একটি সময়সীমাও জানতে চাইবে। ওয়াশিংটন ও বাগদাদের মধ্যে চলমান আলোচনার মধ্যে এ সেনাদের ফিরিয়ে নিতে গত এপ্রিলে ঘোষণা এসেছিল।

আগামী কাল সোমবার ওয়াশিংটনের গিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী কাধিমি। এটা দুই দেশের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে চতুর্থ দফা বৈঠক। নির্ধারিত ওই বৈঠকের আগে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কাধিমি বলেন, ‘ইরাকের মাটিতে বিদেশী কোনো যুদ্ধ-সেনার প্রয়োজন নেই।’

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ এবং আমাদের বাহিনীর প্রস্তুতির জন্য প্রয়োজন একটি বিশেষ সময়সূচির; ওয়াশিংটনে যে আলোচনা হবে তার উপর এটা নির্ভর করছে।’

কাধিমি এমন একটা সময়ে হোয়াইট হাউস সফরে যাচ্ছেন যখন নিজ দেশে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা কমানোর জন্য তার ওপর চাপ রয়েছে। বিশেষ করে, শিয়া রাজনৈতিক দলগুলো এ চাপ সৃষ্টি করে চলেছে। আল জাজিরার খবরে বলা হয়, গত বছর ইরাকের মাটিতে ইরানের প্রভাবশালী জেনারেল কাশেম সুলেইমানি এবং ইরাকের মিলিশিয়া কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহান্দিস যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলার নিহত হওয়ার পর এ আবেগের পালে আরও বাতাস লেগেছে।

বাংলাদেশ জার্নাল / টিটি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত