ঢাকা, রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮ আপডেট : ১ মিনিট আগে

শাওমি ও হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে তথ্য চুরির অভিযোগ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৩

শাওমি ও হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে তথ্য চুরির অভিযোগ
প্রতীকী ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর উপর সেন্সরশিপ খাটানোর ক্ষমতা আছে চীনের শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের তৈরি ডিভাইসে। অভিযোগ উঠেছে- ব্যবহারকারীর তথ্য সংগ্রহ করে এনক্রিপ্টেড অবস্থায় আলাদা সার্ভারে পাঠাচ্ছে স্মার্টফোনগুলো। এই অভিযোগ উঠেছে চীনের শীর্ষস্থানীয় স্মার্টফোন নির্মাতা শাওমি ও হুয়াওয়ের উপর।

চীনা নির্মাতাদের ফোনের এই গোপন বিষয়গুলো উন্মোচনের পর নিজ দেশের নাগরিকদের ওই নির্মাতাদের ফোন কেনা থেকে বিরত থাকা এবং পুরনো ফোনগুলো ফেলে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে ইউরোপের দেশ লিথুয়ানিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, শাওমির ফোনে বিল্ট-ইন সেন্সরশিপ ফিচার এবং হুয়াওয়ের ফোনে নিরাপত্তা দুর্বলতার বিষয়টি উঠে এসেছে লিথুয়ানিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ‘ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার’ থেকে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে।

রয়টার্স আরও জানিয়েছে, ইউরোপে বাজারজাতকৃত শাওমির ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলোতে ‘তিব্বত মুক্ত করো (Free Tibet)’, ‘তাইওয়ানের স্বাধীনতা দীর্ঘজীবি হোক (Long live Taiwan independence)’ এবং ‘গনতন্ত্র আন্দোলন (democracy movement)’-এর মতো স্লোগান চিহ্নিত করে সেন্সর করার বিল্ট-ইন ক্ষমতা আছে।

লিথুয়ানিয়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইউরোপীয় বাজারের জন্য সেন্সরশিপ ফিচারটি বন্ধ করে রাখা হলেও সেটি যে কোন সময় দূর থেকে চালু করে দেওয়া সম্ভব।

লিথুয়ানিয়ার প্রতিরক্ষা উপমন্ত্রী মার্গিরিস আবুকাভিচিয়েস বলেন, “আমরা চীনা ফোন না কেনার এবং যতো দ্রুত সম্ভব পুরনো ফোন ফেলে দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি।” এই প্রসঙ্গে রয়টার্সকে কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি শাওমি।

দেশটির ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টারের ওই প্রতিবেদনে আরও উঠে এসেছে, শাওমির ফোনগুলো ব্যবহারকারীদের ডেটা এনক্রিপ্ট করে সিঙ্গাপুরের একটি সার্ভারে পাঠাচ্ছে। আরেক চীনা নির্মাতা হুয়াওয়ে’র পি৪০ ৫জি ফোনেও পাওয়া গেছে নিরাপত্তা ত্রুটি। তবে ওয়ানপ্লাসের ফোনে সন্দেহজনক কিছু মেলেনি বলে জানিয়েছে প্রতিবেদনটি। প্রতিবেদনে আরও রয়েছে, শাওমির ফোনগুলোর সিস্টেম অ্যাপসে চীনা ভাষায় ৪৪৯টি শব্দ/বাক্যাংশের একটি তালিকা রয়েছে এবং ওই তালিকাটি নিয়মিত আপডেট হয়।

ওই প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হুয়াওয়ে ফোনগুলো ব্যবহারকারীদের ডেটা বাইরের কোনো সার্ভারে পাঠায় না বলে দাবি করেছেন প্রতিষ্ঠানটির বাল্টিক অঞ্চলের মুখপাত্র।

“এই বিষয়টি শুধু লিথুয়ানিয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয় বরং শাওমির সরঞ্জাম ব্যবহারকারী সব দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ”-- বলা হয়েছে লিথুয়ানিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই প্রতিবেদনে।

অন্যদিকে লিথুয়ানিয়া ও চীনের রাজনৈতিক সম্পর্কে সম্প্রতি অবনতি ঘটেছে। অগাস্ট মাসে লিথুয়ানিয়ায় তাইওয়ান নিজস্ব মিশনের নামকরণ ‘তাইওয়ান রিপ্রেজেন্টেটিভ অফিস’ করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর ইউরোপের দেশটির রাষ্ট্রদূতকে বেইজিং থেকে ফিরিয়ে নিতে বলে চীন। লিথুয়ানিয়ার রাজধানী ভিলনিয়াস থেকে নিজস্ব প্রতিনিধি ফিরিয়ে আনার হুমকিও দিয়েছিলো চীন সরকার।

চীন তাইওয়ানকে নিজস্ব দ্বীপ বলে দাবি করে আসছে দীর্ঘ দিন ধরে। এই পরিস্থিতির কারণে ইউরোপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তাইওয়ানের মিশনগুলো তাইপে শহরের নাম ব্যবহার করে।

অন্যদিকে, সম্প্রতি লিথুয়ানিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইনগ্রিডা সিমোনাইটকে চীনের চাপ মোকাবেলায় মার্কিন সমর্থনের আশ্বাস দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জাতীয় নিরাপত্তা পরামর্শক জেক সালিভান।

বাংলাদেশ জার্নাল / এএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত