ঢাকা, বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

ত্রিপুরায় পৌরনির্বাচনে সহিংসতা, জাল ভোটের অভিযোগ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ২৫ নভেম্বর ২০২১, ১৩:৩৪  
আপডেট :
 ২৫ নভেম্বর ২০২১, ১৩:৪১

ত্রিপুরায় পৌরনির্বাচনে সহিংসতা, জাল ভোটের অভিযোগ
আগরতলার ২০ নম্বর ওয়ার্ডের একটি বুথের বাইরে ভোটারদের সারি। ছবি: এএনআই
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্য ত্রিপুরায় পৌরসভা (পুরসভা) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এ ভোটগ্রহণ শুরু হয়। খবর আনন্দবাজার অনলাইনের।

আগরতলাসহ ত্রিপুরার মোট ১৩টি পৌর-অঞ্চলের ৬৪৪টি বুথে ভোটগ্রহণ চলে। এর মধ্যে আগরতলার সবক’টি ভোট গ্রহণ কেন্দ্রসহ ২৭৪টি বুথকে স্পর্শকাতর বলে ঘোষণা করেছে ভারতের নির্বাচন কমিশন। ৩৭০টিকে অতিস্পর্শকাতর বলা হয়েছে।

ত্রিপুরায় মোট পৌরসভা আসন ৩৩৪টি। এর মধ্যে ছয়টি থানা এলাকার ১১২টি আসনে আগেই জিতেছে বিজেপি। বাকি ২২২টি আসনে শুক্রবার ভোট অনুষ্ঠিত হবে। ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত ছিল প্রচারের শেষ দিন।

এ প্রচারণা ঘিরে ত্রিপুরায় একের পর এক সহিংস ঘটনা ঘটেছে। এর জেরেই আদালতের নির্দেশে ত্রিপুরার সেনসিবিলিটি ম্যাপিং করেছিল কমিশন। ভোটগ্রহণ কেন্দ্রগুলোকে দু’টি আলাদা বিভাগে ভাগ করা হয়েছে তার ভিত্তিতেই। নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে অতিস্পর্শকাতর বুথে ৫ জন করে টিআরএস জওয়ান মোতায়েন করা হয়েছে।

এ ছাড়া সব বুথেই ত্রিপুরা স্টেট রাইফেলস সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী থাকবে। ত্রিপুরার ভোটে লড়াই মূলত বিজেপি, কংগ্রেস, তৃণমূল এবং বামেদের মধ্যেই। মোট প্রার্থী ৭৮৫ জন।

ভয় দেখিয়ে ভোট না করলেও পারতেন, বললেন সুদীপ: আবারও বেসুরো ত্রিপুরার বিজেপি বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মণ। প্রায়শই তার মুখে শোনা যায় ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সমালোচনা। আজও তার ব্যতিক্রম দেখা যায়নি।

পৌরভোটে বিজেপি গুণ্ডাগিরি করছে বলে অভিযোগ করেছে সে রাজ্যের বিরোধী সিপিএম এবং তৃণমূল। সেই সুরে কার্যত সিলমোহর দিলেন বিজেপির এ ‘বিদ্রোহী’ বিধায়ক।

সুদীপ বিপ্লবের উদ্দেশে বলেন, ‘ভয় দেখিয়ে ভোট না করলেও পারতেন মুখ্যমন্ত্রী। নেতৃত্বের শিশুসুলভ আচরণের জন্য দলের বদনাম হচ্ছে। মানুষের অভিশাপ কুড়োতে হচ্ছে।’

পোলিং এজেন্টদের মারধরের অভিযোগ তৃণমূল প্রার্থীর: পোলিং এজেন্টদের মেরে ভোটকেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ করলেন তৃণমূলের প্রার্থী। আগরতলার ১০ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন পান্না দেব। তার অভিযোগ, ১০ নম্বর ওয়ার্ডের ৭ নম্বর বুথ থেকে তার পোলিং এজেন্টদের মেওে বের করে দিয়েছে বিজেপির গুণ্ডারা।

৮ নম্বর ওয়ার্ডেও পোলিং এজেন্টকে মেরে বের করে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল। যদিও এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি।

তৃণমূলপ্রার্থীকে মারধরের অভিযোগ: আগরতলার ৫১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল প্রার্থীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে বিজেপি-র বিরুদ্ধে। ত্রিপুরা তৃণমূলের টুইটার হ্যান্ডলে শেয়ার করা হয়েছে সেই ছবি। সেখানে দেখা যাচ্ছে, আঘাতের জেরে তৃণমূলপ্রার্থীর এক চোখ ফুলে গেছে।

রিগিং ও জাল ভোটের অভিযোগ তৃণমূলের: আগরতলার একটি ওয়ার্ডের বুথে রিগিং এবং জাল ভোটের অভিযোগ তুলল তৃণমূল। ত্রিপুরা তৃণমূলের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডল থেকে শেয়ার করা হয়েছে একটি ভিডিও। সেখানে দাবি করা হয়েছে, ভিডিওটি আগরতলার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের একটি বুথের।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, এক বয়স্ক নারী ভোট দেয়ার জন্য ইভিএম মেশিনের কাছে গেলেন। কিন্তু মুখে মাস্ক, কালো জামা পরা এক যুবক সেদিকে এগিয়ে গিয়ে উল্টো দিক থেকে হাত বাড়িয়ে ইভিএম মেশিনের বোতাম টিপলেন।

ওই বৃদ্ধা কিছু না বলেই বেরিয়ে চলে গেলেন। এরপর আর ব্যক্তি ভোট দেয়ার সময়ও এই যুবক এসেছিলেন ইভিএমের কাছে। তখন ওই ব্যক্তিকে বলতে শোনা গেছে, ‘আপনি দাঁড়িয়ে থাকলে আমি ভোট দেব কী করে।’

ত্রিপুরায় আরও কেন্দ্রীয় বাহিনী: পৌরভোটের আবহে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ত্রিপুরায় অতিরিক্ত দুই কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বাংলাদেশ জার্নাল/ টিটি

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত