ঢাকা, শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ৩০ মিনিট আগে

তীব্র দাবদাহে দিল্লিতে রেকর্ড ৪৯ ডিগ্রি তাপমাত্রা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ : ১৬ মে ২০২২, ১১:১৮  
আপডেট :
 ১৬ মে ২০২২, ১১:২২

তীব্র দাবদাহে দিল্লিতে রেকর্ড ৪৯ ডিগ্রি তাপমাত্রা
ছবি- এনডিটিভি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের রাজধানী দিল্লিসহ উত্তরপ্রদেশ পুড়ছে তীব্র দাবদাহ। রোববার (১৫ মে) দিল্লিতে ৪৯ ডিগ্রির বেশি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির সোমবারের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ভারতের উত্তরাঞ্চলে বিশেষত করে রাজধানী দিল্লি বইছে প্রচন্ড দাবদাহ। এছাড়াও উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ ও হরিয়ানার বিভিন্ন অঞ্চলেও দাবদাহ দেখা দিয়েছে। এদিকে আবার একই সময়ে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ কেরালাজুড়ে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে। রাজ্যটির পাঁচ জেলায় ভারি বর্ষণজনিত সতর্কতাস্বরূপ জারি করা হয়েছে রেড অ্যালার্ট।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরে থেকে পাওয়া তথ্যতে দেখা যায়, উত্তরপ্রদেশের বুন্দেলখণ্ড অঞ্চলের বান্দা জেলায় রোববার দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মে মাসে রেকর্ড করা বান্দায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা এটি। এর আগে সেখানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিলো ৪৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাজধানী দিল্লির সফদরজং মানমন্দিরে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪৫ দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস। উত্তর-পশ্চিম দিল্লির মুঙ্গেশপুরে তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৪৯ দশমিক দুই ডিগ্রী সেলসিয়াস, একইসাথে দক্ষিণ-পশ্চিম দিল্লির নাজাফগড়ের তাপমাত্রা ছিল ৪৯ দশমিক এক ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রোববার দিল্লির অধিকাংশ অঞ্চলে তাপমাত্রা ছিল ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে। আর দিল্লির অন্যান্য অংশের চেয়ে কম হলেও এদিন চলতি মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠছে সফদরজংয়ে। সেখানকার তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ৪৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

প্রচন্ড দাবদাহের ভেতর দিল্লির বাসিন্দাদের খুব জরুরি প্রয়োজন ব্যাতীত ঘরের বাইরে বের না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ।

একদিকে দেশের উত্তরাঞ্চলে বইছে তীব্র দাবদাহ। অন্যদিকে দক্ষিণাঞ্চল বিশেষ করে কেরালা ও লাক্ষাদ্বীপে ভারি বৃষ্টির সতর্কতা। কেরালায় রেড এলার্ট জারি হওয়া পাঁচ জেলা হচ্ছে- এরনাকুলাম, মালাপ্পুরাম, কোজিকোড়, থ্রিসুর ও ইদুক্কি।

আবহাওয়া দপ্তরের রেকর্ড অনুযায়ী, রোববার এরনাকুলোমে বৃষ্টির পরিমাণ ছিল ১২২ দশমিক ২ মিলিমিটার, যা এ মৌসুমে স্বাভাবিক বর্ষণের তুলনায় ১৩ গুণ বেশি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত